কাবুলে মানববোমা মারল আমেরিকার সেনা, একাধিক রকেট হামলা শেষে পাল্টা হানা

কাবুলে মানববোমা

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: কাবুলে মানববোমা মারল আমেরিকার সেনা। পাশাপাশি তালিবান রবিবার একাধিক রকেট হামলা চালিয়েছে। আফগানিস্তানের স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে রবিবার কাবুল বিমানবন্দর লাগোয়া খাওয়াজা বুঘরা এলাকায় জঙ্গিরা রকেট হামলা চালায়। ওই এলাকায় আমেরিকার নাগরিকদের বাস। রকেট হামলার নিশানায় আমেরিকার নাগরিকরাই ছিলেন বলে মনে করা হচ্ছে। প্রথম বারের পর ফের দ্বিতীয় বার হামলা চালানো হয়। এর পরেই পাল্টা আঘাত হানে আমেরিকা। তালিবান এক মুখপাত্রকে উদ্ধৃত করে একটি সংবাদ সংস্থা দাবি করেছে, আইএস-কের এক মানববোমাকে গুলি করে মারা হয়েছে।

সংবাদ সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, আত্মঘাতী এক জঙ্গি কাবুল বিমানবন্দরে হামলার পরিকল্পনা করেছিল। তাকে চিহ্নিত করে বিমানবন্দরের কাছেই গুলি করে মারে আমেরিকার সেনা। কাবুলে মানববোমা মারল আমেরিকার সেনা, এই ঘটনায় বাইডেন প্রশাসন যথেষ্ট উদ্বেগে। যদিও অন্য একটি সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, আমেরিকার সেনাবাহিনী আইএস-কের সম্ভাব্য ঘাঁটি লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে। আমেরিকার দুই সেনা আধিকারিক এই খবর জানিয়েছেন বলে ওই সংবাদ সংস্থার দাবি।

বৃহস্পতিবারের জোড়া বোমা হামলার পর শনিবার আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেছিলেন, আগামী ২৪-৩৬ ঘণ্টার মধ্যেই কাবুল বিমানবন্দরে বিস্ফোরণ হতে পারে। তার ঠিক কয়েক ঘণ্টা পর ফের বিস্ফোরণের ঘটনা সামনে এল। এখনও পর্যন্ত এক শিশু-সহ দু’জনের মৃত্যু এবং তিন জন আহত হয়েছেন বলে দাবি বিভিন্ন সূত্রে। আফগানিস্তানের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর, হামিদ কারজাই বিমানবন্দরের কাছে খাওয়াজা বুঘরা এলাকায় রকেট হামলা চালানো হয়েছে। ওই এলাকাতেই রয়েছেন আমেরিকার নাগরিকেরা। চার দিন আগেই সন্ধ্যা নাগাদ কাবুল বিমানবন্দরের বাইরে প্রথমে অ্যাবি গেটের কাছে একটি আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ, তার পর আবার একটি বোমা হামলা কিছুটা দূরে ব্যারন হোটেলের কাছে। ওই ঘটনায় শতাধিক মানুষ নিহত হয়েছে বলে খবর মিলেছে। ঘটনার দিনই গভীর রাতে হামলায় দায় স্বীকার করে নিয়েছিল আফগানিস্তানে আইএসের ‘খোরাসান’ শাখা সংগঠন।

সংবাদ সংস্থা সূত্রে দাবি, এখনও আফগানিস্তানে রয়ে গিয়েছেন প্রায় ৩৫০ জন আমেরিকার নাগরিক। তাঁরা দেশে ফিরতে চান। তাঁদের সতর্ক করে শনিবার দুপুরে বাইডেন জানিয়েছেন, পরিস্থিতি এখনও বেশ বিপজ্জনক। আগামী ২৪-৩৬ ঘণ্টার মধ্যে আবার হামলা হতে পারে। অত্যন্ত সতর্ক থাকার বার্তাও দেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট। দরকারে সেনাবাহিনীর সাহায্য নেওয়ার কথাও বলেন তিনি।


প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)