ইংল্যান্ড ফুটবলারদের উদ্দেশে বর্ণবিদ্ধেষী মন্তব্য, নিন্দায় বরিস জনসন

ইংল্যান্ড ফুটবলারদের উদ্দেশে বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: ইংল্যান্ড ফুটবলারদের উদ্দেশে বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য নিয়ে মুখ খুললেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। রবিবার ইউরো ২০২০ ফাইনালে ইতালির কাছে টাইব্রেকারে হারের মুখ দেখতে হয় ইংল্যান্ড ফুটবল দলকে।  টাইব্রেকারে  গোল করতে পারেননি মার্কাস র‍্যাশফোর্ড, জ্যাডন স্যাঞ্চো ও বুকায়ো সাকা। আর তিন জনকে তার পর থেকে টানা সোশ্যাল মিডিয়ায় জাতিগত বৈষম্যের স্বীকার হতে হচ্ছে। টুইটার, ইনস্টাগ্রামে তাঁদের বিরুদ্ধে পোস্ট ছেয়ে গিয়েছে। যার প্রতিবাদ করেছেন স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী। তাঁর মতে, এই দলের প্লেয়ারদের হিরোর সম্মান দেওয়া উচিত আর সেখানে এভাবে অপমান মেনে নেওয়া যায় না।

তিনি টুইটারে লেখেন, ‘‘এই ইংল্যান্ড দলের হিরোর সম্মান প্রাপ্য, নাকি সোশ্যাল মিডিয়ায় বর্ণবিদ্বেষী আক্রমণ। যাঁরা এমন ঘটনা ঘটানোর জন্য দায়ী তাদের নিজেদের জন্য ‌লজ্জা পাওয়া উচিত।’’ বেশ কিছু ইংল্যান্ড ফ্যানকে চিহ্নিত করা হয়েছে, যারা দলের হারের জন্য এই তিনজনকে দায়ী করছেন। বাকি মেসেজে রয়েছে হ্যাশট্যাগ ‘ফোরজা ইতালিয়া’।

বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে টুর্নামেন্টের প্রথম থেকেই কড়া পদক্ষেপ নিয়েছিল ইংল্যান্ড দল। ম্যাচ শুরুর আগে হাঁটু গেড়ে বসে  সেই আবেদন জানাতে দেখা গিয়েছে তাঁদের বার বার। ফাইনালেও সেই একই দৃশ্য দেখা গিয়েছে। লন্ডন পুলিশ টুইট করে জানিয়েছে, তারা এই পুরো ঘটনা সম্পর্কে অবহিত এবং জানেন কতজন এই সোশ্যাল মিডিয়া মন্তব্যের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন। পুলিশের তরফে বলা হয়েছে, ‘‘এই অপমান কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যায় না, এটা সহ্য করা হবে না এবং এর তদন্ত হবে।’’ সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থাগুলোর তরফেও যাতে ব্যবস্থা নেওয়া হয় সেই আবেদনও উঠেছে।

ইংল্যান্ডের তারকা ফুটবলার রহিম স্টার্লিংকেও সোশ্যাল মিডিয়ায় বর্ণবিদ্বেষের শিকার হতে হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ অন্যায়ভাবে সেমিফাইনালে পেনাল্টি তুলে নিয়েছিলেন। ইংলিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনও বর্ণবিদ্বেষের প্রতিবাদ করেছে। তারা টুইটে প্রতিবাদ করে লিখেছে, ‘‘আমাদের দলের যারা এই জার্সির জন্য সব কিছু দিয়েছে এই মরসুমে তাঁদের এই ম্যাচের পর অসম্মানের শিকার হতে হচ্ছে নেট মাধ্যমে। আমরা আমাদের প্লেয়ারদের পাশে রয়েছি।’’

রবিবার ইউরো কাপের ফাইনালে ইতালির বিরুদ্ধে ম্যাচ শুরুর ২ মিনিটের মধ্যেই গোল করে এগিয়ে গিয়েছিল ইংল্যান্ড। ইতালি সমতায় ফেরে দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝি সময়ে। তার পর আর নির্ধারিত সময়ে কেউই গোল করতে পারেননি। অতিরিক্ত সময়েও ম্যাচের ফল ১-১ থাকার পর টাইব্রেকারে ম্যাচের ফল হয়। সেখানে জিতে যায় ইতালি। টাইব্রেকার মিস করে হারার পর থেকেই ইংল্যান্ড ফুটবলারদের উদ্দেশে বর্ণবিদ্বেষী মন্তব্য ছেয়ে যায় সোশ্যাল মাধ্যমে।

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)