ফেসবুকে নিষিদ্ধ ডোনাল্ড ট্রাম্প, ২ বছরের জন্য ‘সাসপেন্ড’

ফেসবুকে নিষিদ্ধ ডোনাল্ড ট্রাম্প

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: ফেসবুকে নিষিদ্ধ ডোনাল্ড ট্রাম্প । আমেরিকার প্রাক্তন রাষ্ট্রপতিকে আগামী ২ বছরের জন্য ফেসবুক এবং ইনস্টাগ্রামে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে মার্ক জাকারবার্গের সংস্থা। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে আমেরিকার ক্যাপিটল হিলে হিংসার ঘটনায় উস্কানি দিয়েছিল ট্রাম্পের তৎকালীন পোস্ট। সেই সময়েই ট্রাম্পকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে ফেসবুক। তবে কত দিনের জন্য তা নির্দিষ্ট করা হয়নি। বলা হয়েছিল, অনির্দিষ্ট কালের জন্য প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ফেসবুক ব্যবহার করতে পারবেন না। তাকে ‘সাসপেন্ড’ করা হয়। এর পর ওভারসাইট বোর্ডে বিষয়টি যায়।

ওই বোর্ড চিরকালীন ‘সাসপেন্ড’ করার পক্ষে ছিল না। তাদের মত ছিল, সাধারণ কোনও ব্যবহারীর মতোই নিয়ম প্রযোজ্য হোক ট্রাম্পের ক্ষেত্রে। যৌক্তিক ‘শাস্তি’র নির্দেশ দিয়ে ফেসবুককে ৬ মাস সময় দিয়েছিল ওভারসাইট বোর্ড। কিন্তু এক মাসের মধ্যেই নিজেদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয় ফেসবুক। ট্রাম্পকে ২ বছরের সাসপেনশনের নির্দেশ দেয়। যে হেতু গত ৭ জানুয়ারি তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়েছিল, সেই হিসাবে ২০২৩ সালের ৬ জানুয়ারি পর্যন্ত ট্রাম্প ফেসবুক বা ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করতে পারবেন না।

ফেসবুকের ভাইস প্রেসিডেন্ট নিক ক্লেগ এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, ট্রাম্পের উপর নিষেধাজ্ঞা চাপানো হয়েছে যে যে কারণে সেগুলি অত্যন্ত গুরুতর। ফেসবুকের বিধিনিষেধ কঠোর ভাবে লঙ্ঘন করেছে ট্রাম্পের পোস্ট। সে কারণেই ট্রাম্পকে সাসপেন্ড করা ছাড়া অন্য কোনও উপায় ছিল না। যদিও ট্রাম্পের এই ‘শাস্তি’র বিধান নিয়ে নেটিজেনদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

তাঁদের একাংশের মতে, ট্রাম্প আমেরিকার প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট। তাঁর ক্ষেত্রে আরও সংবেদনশীল হওয়া উচিত ছিল। অন্য অংশের মতে, ফেসবুকে ট্রাম্পের পোস্ট হিংসায় উস্কানি দিয়েছিল। এ ক্ষেত্রে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ঠিক সিদ্ধান্তই নিয়েছেন।

তবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ পাশাপাশি এটাও জানিয়েছেন, জনগণের নিরাপত্তা সংক্রান্ত ঝুঁকি কমেছে বলে মনে করা হলে ট্রাম্পের উপর নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ কমতে পারে।

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)