লকডাউনের পথে চিন, দেশ জুড়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ

লকডাউনের পথে চিনচিনে ফের করোনা হানা

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: লকডাউনের পথে চিন আরও একবার। সম্প্রতি দেশ জুড়ে আবারও হুহু করে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। এই দেশ থেকেই ২০২০-তে গোটা বিশ্বে কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়ার অভিযোগ রয়েছে। শুরুতে চিনে কোভিড পরিস্থিতি মারাত্মক আকাড় নিয়েছিল। মানুষের শেষকৃত্য করাও সম্ভব হচ্ছিল না। এই অবস্থায় সে দেশে গণ কবরের মতো ঘটনাও ঘটেছিল।  কিন্তু দ্রুত তা নিয়ন্ত্রণেও নিয়ে আসে চিন। সব দেশ যখন ভুগছে তখন অনেকটাই সুস্থ হয়ে গিয়েছিল চিন। যে দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতের অবস্থা রীতিমতো নাস্তামাবুদ হয়ে গিয়েছিল তখনও চিনে তেমন প্রভাব পড়েনি। কিন্তু নতুন করে চিনে কোভিড সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় তৃতীয় ঢেউয়ের আশঙ্কায় গোটা বিশ্ব।

তড়িঘড়ি সে দেশের সরকার সংক্রমণকে নিয়ন্ত্রণে আনতে বদ্ধপরিকর। যে সব রাজ্যে বেশি সংক্রমণ সেখানে আগেই জোন ধরে ধরে লকডাউন করা হয়েছে। কিন্তু তাতে যে খুব একটা লাভ হয়নি তা বোঝা যাচ্ছে নতুন করে শপিংমল বন্ধ করার সিদ্ধান্তে। ক্রেতা থাকা অবস্থায়একটি শপিংমল সিল করে দেওয়ার মতো ঘটনা ঘটেছে। মনে করা হচ্ছে ডেল্টা স্ট্রেনের মারণ প্রকোপ থেকেই নতুন করে চিনকে ভোগাতে শুরু করেছে কোভিড।

যেখানেই আক্রান্তের খবর আসছে সেখানেই কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। আক্রান্ত এবং আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা সকলকেই আলাদা করা হচ্ছে। নিয়মিত পরীক্ষা করা হচ্ছে সকলের। আর সে কারণেই বেজিংয়ের রাফালস মল সিল করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রশাসনের কছে খবর যায় করোনা রোগীর সংস্পর্শে আসা এক ব্যক্তি এই মলে প্রবেশ করেছেন। যাঁরা মলে ভিতরে ছিলেন তাঁদেরও মল থেকে বাইরে যেতে দেওয়া হয়নি। সকলের করোনা পরীক্ষা হয়ে তার ফল হাতে এলে তবেই নেগেটিভদের যেতে দেওয়া হবে।

সেই মলের ভিডিও রীতিমতো ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে মলের মধ্যে লাইন দিয়ে দাঁড়িয়ে প্রচুর মানুষ। তাঁদের পর পর করোনা পরীক্ষা হচ্ছে। এই তালিকায় ক্রেতা থেকে বিক্রেতা, মলের নিরাপত্তারক্ষী থেকে অন্যান্য কর্মী সকলেই রয়েছেন। কারণ কেউ জানে না, কোন কোন ব্যক্তির সংস্পর্শে এসেছিলেন কোভিড রোগীর সংস্পর্শে আসা ব্যক্তি।

প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)