রাজ্যে লকডাউন কাল থেকে, দেশ জুড়ে বন্ধ ট্রেন-মেট্রো, কলকাতায় করোনা আক্রান্ত আরও ৩

রাজ্যে লকডাউন কাল থেকেরাজ্যে লকডাউন কাল থেকে

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: রাজ্যে লকডাউন কাল থেকে শুরু। আপাতত চলবে ২৭ মার্চ মধ্য রাত পর্যন্ত। গোটা রাজ্য না হলেও, একটা বড়সড় অংশে লকডাউন শুরু হচ্ছে আগামিকাল সোমবার বিকেল ৫টা থেকে। রবিবার বিকেলে নবান্ন থেকে তেমন নির্দেশই জারি করা হয়েছে। অন্য দিকে, এ দিনই রেল মন্ত্রক ঘোষণা করেছে, রবিবার মধ্যরাত থেকে দেশ জুড়ে বন্ধ থাকবে দূরপাল্লা, প্যাসেঞ্জার এবং লোকাল ট্রেন-সহ বিভিন্ন মেট্রো। আগামী ৩১ মার্চ মধ্যরাত পর্যন্ত আপাতত মালগাড়ি ছাড়া কোনও কিছুই চালানো হবে না।

আর এ সবের মধ্যেই এ দিন সন্ধ্যায় জানা গিয়েছে, কলকাতায় আরও তিন জনের শরীরে করোনাভাইরাসের প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে। বালিগঞ্জ এলাকার যে লন্ডনফেরত তরুণের শরীরে করোনাবাইরাসের প্রমাণ মিলেছিল, সেই তরুণেরই বাবা, মা এবং বাড়ির এক পরিচারিকার পরীক্ষার রিপোর্ট এসেছে রবিবার রাতে। সেই রিপোর্টে বলা হয়েছে, ওই তিন জনের শরীরে মিলেছে কোভিড-১৯। ওই তরুণের পরিবারের ১১ জন সদস্য রাজারহাটে কোয়রান্টিনে ছিলেন। সেখান থেকেই এই তিন জনকে এ দিন বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। ওই তরুণও সেখানে ভর্তি।


এই সংক্রান্ত আরও খবর পড়তে ক্লিক করুন

এ দিন দেশের সব রাজ্যেরই মুখ্যসচিবদের সঙ্গে বৈঠক করে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক। সেই বৈঠকে কেন্দ্র পরামর্শ দেয়, দেশের বিভিন্ন রাজ্যের যে সব জেলায় করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছে, সেই সব জেলাকে লকডাউন করা হোক। সেই মতো তারা ৭৫টি জেলার তালিকা তৈরি করে দেয়। বলা হয়, এই ৭৫-এর পাশাপাশি কোনও রাজ্য চাইলে অন্যান্য জায়গাও লকডাউন করতে পারে। সেই পরামর্শ মেনে নেয় প্রতিটি রাজ্য। ওই ৭৫-এর তালিকায় এ রাজ্যের দু’টি জেলা ছিল— কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনা।

তবে ওই দুই জেলা ছাড়াও এ দি‌ন রাজ্য সরকার রাজ্যের একটা বিস্তীর্ণ এলাকাকে লকডাউন করার কথা ঘোষণা করেছে। আগামিকাল বিকেল ৫টা থেকে ওই লকডাউন শুরু হবে। চলবে আগামী ২৭ মার্চ পর্যন্ত। তবে সম্পূর্ণ লকডাউন হচ্ছে রাজ্যের সাতটি জেলা। উত্তর দিনাজপুর, মালদহ, কলকাতা, হাওড়া, মুর্শিদাবাদ, নদিয়া ও পশ্চিম বর্ধমান।

এরই পাশাপাশি বাকি জেলাগুলির সব জেলা সদর শহরে লকডাউন করা হচ্ছে। এ ছাড়া আলিপুরদুয়ারের জয়গাঁ, দার্জিলিঙের শিলিগুড়ি ও কার্শিয়াং শহর, বীরভূমের সমস্ত পুর শহর, পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়া ও কালনা, বাঁকুড়ার বড়জোড়া ও বিষ্ণুপুর, পশ্চিম মেদিনীপুরের খড়গপুর ও ঘাটাল, পূর্ব মেদিনীপুরের হলদিয়া, দিঘা, কোলাঘাট ও কাঁথি, হুগলির চন্দননগর, কোন্নগর, আরামবাগ, শ্রীরামপুর ও উত্তরপাড়া, দক্ষিণ ২৪ পরগনার ডায়মন্ড হারবার, ক্যানিং, সোনারপুর, ভাঙড়, বজবজ ও মহেশতলা, উত্তর ২৪ পরগনার নিউটাউন ও সল্টলেক ছাড়াও সমস্ত পুরসভা এলাকাকে লকডাউন করা হচ্ছে।

সোমবার অর্থাৎ ২৩ মার্চ বিকেল ৫টা থেকে শুক্রবার অর্থাৎ ২৭ মার্চ রাত ১২টা পর্যন্ত এই লকডাউন বলবৎ থাকাকালীন অত্যাবশ্যক জিনিসপত্র পাওয়া যাবে। তবে জরুরি পরিষেবার বাইরে থাকা যাবতীয় কার্যকলাপ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এই সাড়ে চার দিন রাজ্যে সব রকমের গণপরিবহণও বন্ধ থাকবে বলে ঘোষণা করেছে নবান্ন।


(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)

এ দিন রেল মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ৩১ মার্চ পর্যন্ত মেল, এক্সপ্রেস, প্যাসেঞ্জার, লোকাল-সহ সমস্ত রকম ট্রেন পরিষেবা বন্ধ থাকবে। রবিবার রাতের পর থেকে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে কলকাতা মেট্রো পরিষেবাও। রেলের ওই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘‘করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ায় সমস্ত মেল, এক্সপ্রেস ও প্যাসেঞ্জার ট্রেন বাতিল করা হল। তবে কলকাতা ও শহরতলিতে এখনও লোকাল ট্রেন চলছে। পাশাপাশি কলকাতা মেট্রো ও ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোও চলছে। আজ মধ্যরাত পর্যন্ত চলার পর সেগুলিও বন্ধ করে দেওয়া হবে। পরিষেবা বন্ধ থাকবে আগামী ৩১ মার্চ মধ্যরাত পর্যন্ত।’’

এ সবের মধ্যেই এ দিন গোটা দেশ জুড়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ডাকে পালিত হয় জনতা কার্ফু। সেই কার্ফুতে দেশ জুড়েই ভীষণ ভাল সাড়া মিলেছে। করোনাভাইরাসের মোকাবিলায় যাঁরা জরুরি পরিষেবা ক্ষেত্রে নিরন্তন কাজ করছেন, প্রধানমন্ত্রীর আবেদনে সাড়া দিয়ে এ দিন বিকেল পাঁচটার সময় হাততালি-ঘণ্টা-সহ বিভিন্ন জিনিস বাজিয়ে তাঁদের কৃতজ্ঞতা জানানো হয়েছে।