Travel

রাবাংলায় স্নো-ফল

রাবাংলায় স্নো-ফল আর চিলি পর্কের স্মৃতি আজও তাজা

রাবাংলায় স্নো-ফল দেখে সেদিন মুগ্ধ হওয়াটা আজও একইরকম। তার পর বদলেছে অনেক কিছু কিন্তু সেই সময়ের স্মৃতি আজও অমলিন। লিখলেন সুচরিতা সেন চৌধুরী।


ঋষিখোলা

ঋষিখোলা: সেখানে ঋষি নেই ঠিকই কিন্তু প্রকৃতির খোলা জানলা আছে

ঋষিখোলা (Rishikhola) গ্রামে নামটি হয়েছে ঋষি নদীর থেকে। এবং স্থানীয় ভাষায় নদীকে খোলা বলা হয়। সে থেকেই ঋষিখোলা। নদীর পাড়ের এক ছোট্ট নির্জন গ্রাম।


ধানফুলের গন্ধ

ধানফুলের গন্ধ মাতাল করে স্বপ্ন দেখার এই খামারবাড়িতে

ধানফুলের গন্ধ, ওয়াগনার থেকে নামতেই কোথা থেকে যেন ভেসে এল। চোখটা বন্ধ করে একটা লম্বা শ্বাস নিলাম, যাতে মিষ্টি ওই গন্ধটাকে নিজের ভেতরে নেওয়া যায়।


লামাহাটায় হাঁটতে হাঁটতে

লামাহাটায় হাঁটতে হাঁটতে পাহাড় চূড়ায় মেঘের সঙ্গে দেখা

লামাহাটায় হাঁটতে হাঁটতে পাহাড় চূড়ায় পৌঁছে দেখা পেলাম শান্ত শীতল এক জলাশয়ের। যার শরীরে ছায়া ফেলে প্রকৃতি। তার উপর দিয়ে পত পত করে উড়ছে প্রেয়ার ফ্ল্যাগ।


সিকিমে বাংলার গ্রাম

সিকিমে বাংলার গ্রাম, স্নো-ফল থেকে রডোডেনড্রন সব মিলবে সেখানে

রাবাংলা গিয়েছেন শীতে? একবার ঘুরেই আসুন। দেখবেন রূপটাই বদলে যায় সে সময়। দূরপাল্লার ট্রেন যখন শহুরে স্টেশন ছাড়ে তখনই মনের মধ্যে রোমান্টিসিজমটা জাকিয়ে বসে।


বড়ামাঙ্গওয়া

বড়ামাঙ্গওয়া, আমার ভালবাসার বারান্দা, আমার খাদের ধারের রেলিংটা

বড়ামাঙ্গওয়া আর আমার ভালবাসার বারান্দা। ওই বাড়ান্দায় দাঁড়িয়ে দেখা যায় তিস্তার ভেসে যাওয়া। ওই বারান্দা লাগোয়া গাছের ডালে খেলা করে কত নাম না জানা পাখি।