এটিকে এফসি বনাম বেঙ্গালুরু এফসি সেমিফাইনালের দ্বিতীয় লেগই বলে দেবে ফাইনালে কে

এটিকে এফসি বনাম বেঙ্গালুরু এফসিএটিকে এফসি বনাম বেঙ্গালুরু এফসি

জাস্ট দুনিয়া ব্যুরো: এটিকে এফসি বনাম বেঙ্গালুরু এফসি দ্বিতীয় লেগের ম্যাচ রবিবার এটিকের ঘরের মাঠে। এর পরই নিশ্চিত হয়ে যাবে ফাইনালে চেন্নাইয়ের মুখোমুখি হবে কোন দল। শনিবারই গোয়াকে হারিয়ে ফাইনালে পৌঁছেছে চেন্নাই। ফাইনালে ওঠার যুদ্ধে নেমে শুরুতেই হোঁচট খেয়েছে এটিকে এফসি। সেমিফাইনালের প্রথম লেগে বেঙ্গালুরু এফসি-র কাছে ০-১ হেরে। যদিও ব্যবধানটা বিশাল কিছু নয়। তবে সহজেই যে ব্যবধানটা মেটানো যাবে, এমন ভাবার কোনও কারণও নেই। গত ম্যাচে বেঙ্গালুরুর রক্ষণ বিভাগের যে শক্তি টের পেয়েছে কলকাতার দল, তা ভেদ করতে হলে বিশেষ কৌশল খুঁজে বার করতেই হবে এটিকে-র কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাসকে।

অন্য দিকে, ম্যাচটা ড্র রাখতে পারলেই ফাইনালে উঠে যাবে বেঙ্গালুরু। তাই তাঁরা যে রবিবার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে রক্ষণ-নির্ভর ফুটবল খেলার প্রবণতা নিয়েই নামবে, সেটাই ধরে নেওয়া যায়। এমনিতেই লিগে সবচেয়ে কম গোল খেয়েছে তারা। ১১টি ম্যাচে গোল না খেয়ে মাঠ ছেড়েছে গতবারের চ্যাম্পিয়নরা, যা আইএসএলের ইতিহাসে প্রথম। সেমিফাইনালে আধঘণ্টার মধ্যে গোল দিয়ে যে ভাবে রক্ষণ সামলেছেন কার্লস কুয়াদ্রাতের দলের ডিফেন্ডাররা, তাতে তাদের গোল এরিয়ার মধ্যে ঢুকতেই পারেননি রয় কৃষ্ণা, ডেভিড উইলিয়ামস, এডু গার্সিয়ার মতো ক্ষিপ্র এটিকে ফরোয়ার্ডরা।

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)

রবিবারও হয়তো সেই কৌশলই অবলম্বন করবে বিএফসি। এটিকে-র আবার অ্যাওয়ে গোল অ্যাডভান্টেজও নেই। ফলে অন্তত দুই গোলের ব্যবধানে জেতা ছাড়া কোনও উপায় নেই তাদের। নির্দিষ্ট সময়ে এটিকে ১-০-য় এগিয়ে থাকলে অতিরিক্ত সময়ে খেলা গড়াবে এবং তাতেও নিষ্পত্তি না হলে টাই ব্রেকার। ২-১ বা ৩-২ হলে অবশ্য কোনও লাভ হবে না। অ্যাওয়ে গোলের দিক থেকে বিএফসি-ই ফাইনালে চলে যাবে। সুনীল ছেত্রীরা গোল করলেই দ্বিগুন অ্যাডাভান্টেজ বিএফসি-র। তাই রবিবার এটিকে-র আক্রমণের যেমন কঠিন পরীক্ষা, তেমনই বড় চ্যালেঞ্জ তাদের রক্ষণেরও।

লিগের শেষ দুই ম্যাচে জিততে না পারলেও এটিকে এফসি তার আগে পর্যন্ত দুর্দান্ত ফর্মে ছিল। টানা চারটি ম্যাচে জেতে তারা। এর মধ্যে এফসি গোয়ার বিরুদ্ধে জয়ও ছিল তাদের। সে দিন বেঙ্গালুরুর কান্তিরাভা স্টেডিয়ামে হিরো আইএসএলের দ্বিতীয় সেমিফাইনালের প্রথম লেগের ম্যাচে ৩১ মিনিটের মাথায় জামাইকান ফরোয়ার্ড দেশর্ন ব্রাউনের করা গোলে চলতি মরশুমে কলকাতার দলের বিরুদ্ধে প্রথম জয় পায় বেঙ্গালুরুর দল।

এই রবিবার সেই অসাধ্য সাধনই করতে হবে তাঁদের। দুই উইং দিয়ে প্রবীর দাস ও মাইকেল সুসাইরাজ যে ভাবে এই মরশুমে বেশ কয়েকটি ম্যাচে আক্রমণ তৈরি করে দিয়েছিলেন, সে ভাবে চেষ্টা করলে হয়তো বিপক্ষের ডিফেন্সে ফাঁকা জায়গা তৈরি হতে পারে। এটিকে যে কাউন্টার অ্যাটাকের জন্য এ বার যথেষ্ট সুনাম অর্জন করেছে, তা যদি তারা নিখুঁত ভাবে ফের দেখাতে পারে, তা হলে সাফল্যের আশা আছে।

প্রথম সেমিফাইনালে হেরে দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ঘুরে দাঁড়ানোর নজির এটিকে স্থাপন করেছে এর আগেও। ২০১৫-য় এটিকে-কে ঘরের মাঠে ৩-০ গোলে হারায় চেন্নাইন এফসি। চেন্নাইয়ে দ্বিতীয় লেগে এটিকে ২-১ গোলে জিতে ঘুরে দাঁড়ালেও দুই লেগে মোট গোলের বিচারে তারা অবশ্য ফাইনালের দৌড় থেকে ছিটকে যায়।

ডেভিড উইলিয়ামস চোট সারিয়ে ফিরে এলেও আগের ফর্মে ফিরে আসতে পারেননি। রয় কৃষ্ণা অবশ্য দুরন্ত ফর্মে রয়েছেন। এখনও পর্যন্ত একটি ম্যাচেও তিনি বিশ্রাম নেননি। তবে এডু গার্সিয়ার ঠিক সময়ে উন্নতিটা এটিকে এফসি-র পক্ষে অবশ্যই আশার আলো। বেঙ্গালুরুর বিরুদ্ধে লিগের শেষ ম্যাচে ৮৫ মিনিট পর্যন্ত ০-২ পিছিয়ে থাকার পরে চার মিনিটের মধ্যে জোড়া গোল করে ম্যাচ ড্র করে এটিকে। একটি গোল করেন এডু, অন্যটিতে সাহায্য করেন তিনি। তাও ম্যাচের শেষ দিকে নেমে। লিগ পর্বে হোম ম্যাচে উইলিয়ামসের ৪৭ মিনিটের গোলে সুনীল ছেত্রীদের হারিয়েছিল এটিকে। এ বার ঘরের মাঠে সেই একই বিপক্ষকে সামনে পেয়ে জ্বলে উঠতে পারে কি না এটিকে, সেটাই দেখার।

সম্ভাব্য এটিকে দল: অরিন্দম (গোল), প্রীতম, সুমিত, জনসন, প্রবীর, হার্নান্ডেজ, সুসাইরাজ, জয়েশ, এডু, উইলিয়ামস, কৃষ্ণা।

৮ মার্চ, রবিবার সন্ধ্যা ৭.৩০ থেকে স্টার স্পোর্টস নেটওয়ার্ক, হটস্টার ও জিও টিভিতে এটিকে এফসি বনাম বেঙ্গালুরু এফসি ম্যাচ দেখুন সরাসরি।

(খবর সৌজন্যে আইএসএল ওয়েব সাইট)

এই সংক্রান্ত আরও খবর পড়তে ক্লিক করুন