স্থগিত আইপিএল ২০২১, অনেক ক্রিকেটার আক্রান্ত করোনাভাইরাসে

স্থগিত আইপিএল ২০২১

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: স্থগিত আইপিএল ২০২১, মঙ্গলবার জানিয়ে দিল বিসিসিআই। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন আইপিএল খেলা অনেক ক্রিকেটার। সোমবারই কলকাতা নাইট রাইডার্সের দু’জন ক্রিকেটার কোভিড-১৯ পজিটিভ হওয়ার কারণে আরসিবির বিরুদ্ধে ম্যাচ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের তরপে জানানো হয়েছিল, আইপিএল চলবে। কিন্তু মঙ্গ‌লবার জানা যায় আইপিএল খেলা আরও অনেক ক্রিকেটারই কোভিড পজিটিভ। তার মধ্যে রয়েছেন বাংলার ক্রিকেটার ঋদ্ধিমান সাহাও। আর তার পরই তড়িঘড়ি আইপিএল স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন বোর্ড।

মঙ্গলবার তড়িঘড়ি জরুরি মিটিং ডাকে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)। সেখানেই সকলের মতের উপরই সিদ্ধান্ত নেওয়া এখুনি বন্ধ করে দেওয়া হোক আইপিএল ২০২১। সেই মতই আইপিএল ২০২১ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিল বিসিসিআই। বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তারা কোনওভাবেই প্লেয়ার, সাপোর্ট স্টাফসহ যাঁরা যাঁরা এই খেলার সঙ্গে জরিয়ে রয়েছেন তাঁদের কারও জীবন নিয়ে ঝুঁকি নিতে চায় না। এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, নিরাপত্তা, স্বাস্থ্য এবং ভালর জন্য।

খেলা চলাকালীন যে দু’জন ক্রিকেটারের প্রথম কোভিড আক্রান্ত হওয়ার খবর আসে তাঁরা হলেন কেকেআর-এর ভরুণ চক্রভর্থী ও সন্দীপ ওরিয়র। এর পর জানা যায় চেন্নাই সুপার কিংসের বোলিং কোচ লক্ষ্মীপতি বালাজি এবং তাদের ট্র্যাভেল টিম সাপোর্ট স্টাফের অনেকেই আক্রান্ত। কলকাতা দলের পাশাপাশি চেন্নাই দলও সঙ্গে সঙ্গে আইসোলেশনে চলে যায়।

বিসিসিআই তাঁদের বার্তায় জানিয়েছে, ‘‘এটা খুব কঠিন সময়, বিশেষ করে ভাতে। কিন্তু যখন আমরা কিছু ভাল, সদর্থক বিষয় ফিরিয়ে আনছিলাম তখন টুর্নামেন্ট বন্ধ করে দিতে হল এবং সবাই তাঁদের পরিবারের কাছে ফিরে যাবে। বিসিসিআ সব স্বাস্থ্যকর্মী, রাজ্য সংস্থা, প্লেয়ার, সাপোর্ট স্টাফ, ফ্র্যাঞ্চাইজি, স্পনসর, পার্টনার ও যারা এই টুর্নামেন্টের সঙ্গে যুক্ত আইপিএল আয়োজনকে সেরা করে তোলার জন্য তাদের সবাইকে ধন্যবাদ।’’

লিগের ৫৬টি ম্যাচের মধ্যে এখনও পর্যন্ত খেলা হয়েছে ২৯টি। শেষ ম্যাচ খেলা হয়েছে ২ মে পঞ্জাব কিং ও দিল্লি ক্যাপিটালসের মধ্যে। কলকাতা, চেন্নাই ছাড়াও আক্রান্ত হায়দ্রাবাদ, দিল্লির ক্রিকেটাররা। ঋদ্ধিমান সাহা ও অমিত মিশ্রও আক্রান্ত করোনায়। গত কয়েকদিন ধরেই জ্বর ছিল ঋদ্ধিমানের। জ্বর রয়েছে ভরুণেরও।

দিল্লি আর আহমেদাবাদে ম্যাচ স্থানান্তরিত হওয়ার পরই আক্রান্ত হয়ে পড়েন ক্রিকেটাররা। এদিন প্রথমে মনে করা হচ্ছিল সব ম্যাচ আবার মুম্বইতে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে কারণ সেখানকার পরিকাঠামো ভাল। যতদিন সেখানে খেলা হয়েছে এমন কোনও সমস্যা হয়নি। তবে শেষ পর্যন্ত আর ঝুঁকি না নিয়ে টুর্নামেন্ট বাতিল করারই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল কারণ দেশি-বিদেশি মি‌লিয়ে অনেক ক্রিকেটারই আর এই পরিস্থিতিতে আইপিএল খেলতে চাইছেন না।

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)