ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৯: ওকুহারাকে হারিয়ে ঐতিহাসিক জয় পিভি সিন্ধুর

ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৯

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৯ ভারতের ব্যাডমিন্টনের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে পিভি সিন্ধুর জন্য। প্রথম ভারতীয় হিসেবে এই টুর্নামেন্ট জিতে নিলেন তিনি। তাঁর হাত ধরেই রবিবার ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে সোনা এল ভারতের ঘরে। নোজোমি ওকুহারাকে রীতিমতো উড়িয়ে দিলেন তিনি। তৃতীয় বাছাই ওকুহারা দাঁড়াতেই পারলেন না সিন্ধুর সামনে। খেলার ফল যার প্রমান, ২১-৭, ২১-৭।

টানা তিন বার ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পৌঁছেছিলেন সিন্ধু। শেষ দু’বার রুপো জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল। সেটা ২০১৭ ও ২০১৮। কিন্তু এ বার শুরু থেকেই নিজের পারফর্মেন্সে বার্তাটা দিয়েই রেখেছিলেন তিনি। সব ম্যাচ রীতিমতো দাপটের সঙ্গে জিতেই ফাইনালে পৌঁছেছিলেন তিনি। আর শেষ দিন পর্যন্ত সেটা ধরে রাখলেন তিনি।

এই জয় সিন্ধুর জন্য আরও একটা কারনে বিশেষ। আ সিন্দুর মায়ের জন্মদিন। সেই দিনে দেশকে দেওয়া ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপের ট্রফি তিনি মা-কেই উৎসর্গ করলেন। সিন্ধু প্রথম গেম জিতে নিয়েছিলেন মাত্র ১৬ মিনিটে। ওকুহারা অনেক আনফোর্সড এরর করলেন। যা সিন্ধুকে সহজ জয় এনে দিল। মাত্র ৩৮ মিনিটে ফাইনাল শেষ করে দিলেন ভারতের সোনার মেয়ে।

রিও অলিম্পিক্সে ফাইনালে পৌঁছেও সোনা জেতা হয়নি। এই সোনা সেই দুঃখ অনেকটাই ভোলাতে সাহায্য করবে। চ্যাম্পিয়ন হয়ে সিন্ধু বলেন, ‘‘আমি এই জয় আমার মাকে উৎসর্গ করতে চাই। আজ তার জন্ম দিন। ধন্যবাদ মা।’’

এই ক্যালেন্ডার ইয়ারে সিন্ধু ভাল খেলেও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেননি। আর সে কারণেও এই জয় গুরুত্বপূর্ণ তাঁর জন্য। সিন্ধু বলেন, ‘‘আমি আমার দেশের জন্য জিতেছি। আর ভারতীয় হতে পেরে আমি গর্বিত। শেষবার আমি ফাইনালে হেরে গিয়েছিলাম। তার আগেও আমি ফাইনালে হেরেছিলাম। এই জয় আমার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জিততে পেরে আমি খুব খুশি।’’

কোচদেরও ধন্যবাদ জানাতে ভোলেননি সিন্ধু। তিনি বলেন, ‘‘আমার কোচ মিস কিম (দক্ষিণ কোরিয়ার কিম জি হুন) ও গোপি স্যার (পুলেল্লা গোপীদাঁদ)কে ধন্যবাদ। এবং তাদের সবাইকে ধন্যবাদ যারা আমাকে সমর্থন করেছেন এবং আমার বাবা-মাকে।’’

পুরো টুর্নামেন্টে তাঁকে অনেকেই সমর্থন করতে গ্যালারি ভরিয়েছিলেন। তাঁর জন্য গলা ফাটাতে দেখা গিয়েছে অনেক ভারতীয়কেই। তাদের উদ্দেশে সিন্ধু বলেন, ‘‘যারা আমাকে সমর্থন করতে এখানে এসেছেন তাদের সবাইকে ধন্যবাদ। এটা আমার জন্য অনেক। সব সময় আমার ম্যাচে আমার জন্য গলা ফাটাতে দেখা গিয়েছে তাদের।’’

(খেলার আরও খবরের জন্য ক্লিক করুন এই লিঙ্কে)