কান্দাহারে খুন রয়টার্স ফটো জার্নালিস্ট, ৩ দিন আগের টুইট ‘বেঁচে গেছি’

কা‌ন্দাহারে খুন রয়টার্স ফটো জার্নালিস্ট

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: কা‌ন্দাহারে খুন রয়টার্স ফটো জার্নালিস্ট দানিশ সিদ্দিকি। তাঁর কাজের জন্য তিনি পুলিৎজার পুরস্কারেও সম্মানিত হয়েছিলেন। কাজ করতেন সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের হয়ে। সম্প্রতি পৌঁছে গিয়েছিলেন আফগানিস্তানের কান্দাহারে।  নিজের ফটোগ্রাফির মধ্যে দিয়েই দুনিয়াটাকে দেখতেন দানিশ। নিজের কাজ নিয়ে মুখিয়ে থাকতেন তিনি। তাই কোনও বাধাই বাধা ছিল না তাঁর জন্য। পৌঁছে যেতেন সব কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে। যা সাধারণ মানুষের সামনে তুলে আনত বিশ্বের সব ভয়ঙ্করতম পরিস্থিতির কাহিনি। আজ সেই পরিস্থিতির শিকার হলেন দানিশ। আর তাঁর ক্যামেরা কথা বলবে না। বৃহস্পতিবার কাজের মধ্যেই খুন হন তিনি।

আফগান স্পেশাল ফোর্সের সঙ্গেই ঘুরছিলেন তিনি। তাঁর ক্যামেরায় বন্দি হচ্ছিল স্পেশাল ফোর্সের সেই এলাকায় তালিবানদের বিরুদ্ধে অভিযান। প্রতিমুহূর্তে জীবনের ঝুঁকির কথা তিনি নিজেই জানিয়েছিলেন। তিন দিন আগে পর পর বেশ কয়েকটি টুইট করেছিলেন তিনি। সেখানে তিনি লেখেন, তিনি আফঘান স্পেশাল ফোর্সের অসাধারণ ফাইটারদের সঙ্গে দেশের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরছেন। এবং সেখানেই তাঁদের গাড়িকে টার্গেট করা হয়। এর সঙ্গে তিনি এও জানান, ‘‘আমি ভাগ্যবান আমি নিরাপদ রয়েছি।’’

কিন্তু তিনদিন বাদে সেই নিরাপত্তা সত্যিই ভ্যানিশ হয়ে গেল। সামনে থেকে মৃত্যুকে দেখার পরও ব্যাটলগ্রাউন্ড ছাড়েননি দানিশ। তার আগেই ভারতীয় দূতাবাস থেকে ৫০ জনকে উদ্ধার করা হয়। সেখানেও ছিলেন দানিশ। তালিবানরা আবার আফগানিস্তানের উপর নিজেদের দখল নিতে চাইছে। যার ফলে যুদ্ধ পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। এবং আমেরিকা সেখান থেকে তাদের সেনা সরিয়ে নিয়েছে সম্প্রতি। তার পরই পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে পড়ে।

দানিশ ভারতে রয়টার্সের মাল্টিমিডিয়া দলের নেতৃত্বে ছিলেন। ভারতীয় কোভিডের দ্বিতীয় ওয়েভের শেষকৃত্যের দৃশ্যের ড্রোন ইমেজ গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছিল।  দিল্লির জামিয়া-মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ব বিদ্যালয় থেকে ইকনমিক্সের স্নাতক হওয়ার পর সেখান থেকেই মাস কমিউনিকেশনে ডিগ্রি নেন তিনি। টিভি নিউজ রিপোর্টের থেকে ফটোজার্নালিস্ট হয়ে ২০১০-এ তিনি রয়টার্সে যোগ দেন। ২০১৮-তে তিনি রোহিঙ্গা উদ্বাস্তু পরিস্থিতির উপর কাজের জন্য পুলিৎজার পুরস্কার পান।

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)