Omicron আতঙ্কের মধ্যেই দক্ষিণ আফ্রিকা ফেরৎ আরও ৬ আক্রান্ত

Omicron

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: Omicron আতঙ্কের মধ্যেই বুধবার আরও ৬ জনের শরীরে ধরা পড়ল কোভিড, যাঁরা ফিরেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকা এবং ঝুঁকিপ্রবণ দেশ থেকে। তার মধ্যেই দেশে বাড়ল কোভিড আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। গত সোম ও মঙ্গলবার দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ফেরা দু’জনের শরীরে কোভিড সংক্রমণধরা পড়েছিল। সেটা  Omicron কিনা তা এখনও জানা যায়নি। তবে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। এর মধ্যেই বিভিন্ন সংক্রমিত দেশ থেকে আসা আরও ৬ জনের শরীরে নতুন করে কোভিড সংক্রমণ ধরা পড়ায় আতঙ্ক বেড়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে কোভিডে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮,৯৫৪ জন। যা একদিন আগে ছিল ৬,৯৯০ জন। এক ধাক্কায় এর মধ্যেই সংক্রমণ বেড়ে গিয়েছে অনেকটা। যা নতুন করে চিন্তার কারণ হতে পারে সরকারের। একদিনে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৬৭-তে। এই মুহূর্তে অ্যাকটিভ কেস ৯৯,০২৩। টিকাই একমাত্র বাঁচার রাস্তা বলে মনে করা হচ্ছে। দেশে এখনওপর্যন্ত টিকা করণ হয়েছে ১,২৪,১০,৮৬,৮৫০ জনের।

তবে দেশে হঠাৎ করেই ঢুকে পড়েছে ওমিক্রন আতঙ্ক। তার মধ্যে বিদেশী বিমানেও পুরোপুরি ছাড় দিয়ে দেওয়া হয়েছে। যা আরও আতঙ্ক সৃষ্টি করছে। যদিও বিমান বন্দরে আরটিপিসিআর পরীক্ষার পরই যাত্রীদের বাইরে যেতে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু মুশকিল হচ্ছে আরটিপিসিআর পরীক্ষায় অনেক সময় ধরা পড়ছে না সংক্রমণ। যেমন গত মঙ্গলবার চণ্ডীগড়ে কোভিড ধরা পড়া ব্যক্তির আরটিপিসিআর পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছিল। বা মহারাষ্ট্রে দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আসা ব্যক্তির ক্ষেত্রেও তেমনটাই হয়েছিল। যে কারণে তাঁর সংস্পর্শে আসা অনেকের মধ্যেই কোভিড সংক্রমিত হয়েছে।

বুধবার যে ৬ জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে তাঁরা দক্ষিণ আফ্রিকা ও নাইজেরিয়া থেকে ভারতে এসেছেন। এ ছাড়া দিল্লিতে ইতিমধ্যই ঝুঁকিপ্রবণ দেশ থেকে ৪টি বিমান ১,০১৩ জন দিল্লিতে ঢুকেছেন। তাঁদের আরটিপিসিআর রিপোর্ট এখনও আসেনি। এই অবস্থায় বিদেশ থেকে আসা সকলকেই প্রাথমিকভাবে ৭ দিন কোয়ারিন্টাইন থাকতে হবে। তার পর আবার পরীক্ষা হবে। যেভাবে প্রথম দুই দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে আসা ব্যক্তির ক্ষেত্রে হয়েছে এবং কোভিড ধরা পড়েছে।

প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)