গোয়ায় মমতার প্রথম দলীয় বৈঠক, জানালেন ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার কথা

গোয়ায় মমতার প্রথম দলীয় বৈঠকগোয়ায় মমতার প্রথম দলীয় বৈঠক

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: গোয়ায় মমতার প্রথম দলীয় বৈঠক ঘিরে ছিল প্রভূত আগ্রহ। এই প্রথম দলের কাজে সে রাজ্যে পা রাখলেন তিনি। তার আগে তৃণমূল কংগ্রেসে অন্যান্য নেতারা সেখানে গিয়েছেন। ইতিমধ্যেই সেখানে খুব অল্প সময়ে দলের শক্ত ঘাটি তৈরি হওয়ার ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে। এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে যেমন তৃণমূলে যোগ দিলেন বিখ্যাত টেনিস তারকা লিয়েন্ডার পেজ তেমনই যোগ দিলেন অভিনেত্রী নাফিসা আলি। আরও নাম রয়েছ তালিকায়। তবে তার আগে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী চান সে রাজ্যে দলের ভিতটা শক্ত করতে। সেই লক্ষ্যেই সেখানকার নেতাদের নিয়ে এদিন বৈঠকে বসেছিলেন তিনি। সে ত্রিপুরা হোক বা গোয়া—তৃণমূলের স্লোগান একটাই উন্নয়ন। এদিনও সে কথাই জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, ‘‘এখানে আমরা শুধু রাজনীতি করতে আসিনি। এসেছি উন্নয়নের জন্য, সংস্কৃতির জন্য।’’ তিনি ফুটবলের মঞ্চেও জুড়ে দেন বাংলা-গোয়াকে। এই মুহুর্তে সব আইএসএল দলগুলো রয়েছে গোয়ায়। সেখানেই হবে এবারের ইন্ডিয়ান সুপার লিগ। রয়েছে এসসি ইস্টবেঙ্গল ও এটিকে মোহনবাগানও। সেই প্রসঙ্গও তুলে আনেন তিনি। গোয়ায় তৃণমূলের প্রসার ও প্রচার কী ভাবে এগোবে, তা নিয়েও দলীয় বৈঠকে আলোচনা হয়। যেভাবে ত্রিপুরার দায়িত্ব কারও কারও হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে, সেভাবে গোয়ার ক্ষেত্রেও দেওয়া হয়েছে।

তবে তিনি এও জানিয়ে দিয়েছেন, তৃণমূল ক্ষমতায় এলে মুখ্যমন্ত্রী কিন্তু বাংলা থেকে নয় হবেন গোয়া থেকেই। রাজ্যের দায়িত্ব রাজ্যের ভূমিপুত্রের উপর থাকাতেই তিনি বিশ্বাসী। যেভাবে পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের স্লোগান হয়ে উঠেছিল ‘‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’। আর সেই স্লোগান বাজিমাত করেছে। একইভাবে গোয়াতেই নিজেরই ছেলে বা মেয়েতেই ভরসা রাৱতে চাইছেন তিনি, সেটা বুঝিয়ে দিয়েছেন। এদিন, তিনি কংগ্রেসকেও ছাড়েননি একহাত নিতে। মমতার আর্জি, গোয়া সবাইকে সুযোগ দিয়েছে একবার তৃণমূলকে দিয়ে দেখুক। এদিন তৃণমূল নামের ব্যাখ্যাও করেছেন। তিনি বলেন, টিএমসি মানে টেম্পল, মস্ক, চার্চ।

প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)