করোনার নতুন ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট, দেশের তিন জেলায় আক্রান্ত ২২

আমেরিকায় ডেল্টার হানা

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: করোনার নতুন ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট দেশে তৃতীয় তরঙ্গ ডেকে আনতে পারে। এমন আশঙ্কাই করছেন বিশেষজ্ঞেরা। ডেল্টা স্ট্রেনের নতুন মিউট্যান্ট ভার্সন এই ডেল্টা প্লাস। করোনার নতুন ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট নিয়েই এখন আশঙ্কা। এই স্ট্রেন ভারতেই প্রথম পাওয়া গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত দেশে মোট ২২ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত। মহারাষ্ট্র, কেরল এবং মধ্যপ্রদেশ— এই তিন রাজ্য থেকে ওই ২২ জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া গিয়েছে। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ওই রাজ্যগুলিকে উদ্বেগজনক পরিস্থিতি বলে সতর্কও করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কা কাটিয়ে ভারতে যকন দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা কমছে, তখনই করোনার নতুন ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট-এ সংক্রমণের খবর মিলেছে মহারাষ্ট্রের রত্নগিরি এবং জলগাঁও থেকে। কেরলের পলক্কড় এবং পাথানামথিত্তা থেকেও সংক্রমণের খবর মিলেছে। একই সঙ্গে মধ্যপ্রদেশের ভোপাল এবং শিবপুরীতেও ওই ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত হয়েছেন কয়েক জন। কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে ওই তিন রাজ্যকে পরামর্শ দেওয়ার পাশাপাশি সতর্কবার্তাও পাঠানো হয়েছে।

ওই বার্তায় তিন রাজ্যের মুখ্যসচিবকে যে জেলা থেকে সংক্রমণের খবর এসেছে, সে সব জায়গায় জরুরি ভিত্তিতে কন্টেনমেন্ট জোন এবং ক্লাস্টার তৈরির নির্দেশে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি মানুষের গতিবিধি নিয়ন্ত্রণ, আক্রান্তদের যত দ্রুত সম্ভব চিহ্নিত করা, টিকা এবং টেস্টের সংখ্যা বাড়ানোর উপরে জোর দিতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব রাজেশ ভূষণ জানিয়েছেন, ভারতে যে দু’টি টিকা এখনও পর্যন্ত দেওয়া হচ্ছে— কোভ্যাক্সিন এবং কোভিশিল্ড— তাদের এই নতুন ডেল্টা প্লাস প্রজাতির বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতা রয়েছে। তবে সেই ক্ষমতার পরিমাণ এবং তা কতটা অ্যান্টিবডি তৈরি করতে পারবে তা এখনও জানা যায়নি বলে দাবি করেছেন রাজেশ। করোনার নতুন ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট গত কয়েক দিন ধরেই কেন্দ্রের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। দিল্লিতে এ দিন সাংবাদিক বৈঠকে রাজেশ জানিয়েছেন, ভারতের পাশাপাশি মোট ৮টি দেশে করোনার নতুন ডেল্টা প্লাস ভ্যারিয়েন্ট-এর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। সেগুলি হল ব্রিটেন, পর্তুগাল, সুইৎজারল্যান্ড, পোল্যান্ড, জাপান, নেপাল, চিন এবং রাশিয়া।

ন্যাশনাল এক্সপার্ট গ্রুপ অন ভ্যাকসিন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের প্রধান ভিকে পাল এ দিন বলেন, ‘‘কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে একটি পরামর্শ এবং সতর্কবার্তা পাঠানো হয়েছে ওই তিন রাজ্যকে। জনস্বাস্থ্য নিয়ে সচেতনতা বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। আগে যেমন ভাবে সব বিধিনিষেধ মানা হত, তেমনটায় ফিরে যেতে বলা হয়েছে। সঙ্গে আরও বেশি ফোকাসড এবং কার্যকর করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আমরা চাই না, আক্রান্তের এই ছোট সংখ্যা কোনও বড় অঙ্কে পৌঁছক।’’


প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)