বিরাট-বিজয় দাপটে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-০তে এগোল ভারত

বিরাট-বিজয় দাপটেবিরাট-বিজয়ের পর উচ্ছ্বাস।

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: বিরাট-বিজয় দাপটে জয় ভারতের। পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ২-০তে এগিয়ে গেল ভারত। ঘরের মাটিতে টি২০ সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর ওডিআই সিরিজে রীতিমতো মরিয়া হয়েই নেমেছিল ভারতীয় ক্রিকেট দল। যার ফল পর পর দুই ম্যাচে লড়াই করেই ম্যাচ বাঁচাতে হল ভারতকে। কখনও বোলাররা সাফল্য পেলেন তো কখনও ব্যাটসম্যানরা। প্রথম ম্যাচ হায়দ্রাবাদে জয় এনে দিয়েছিল এমএস ধোনিই আর কেদার যাদবের ব্যাট। দ্বিতীয় ম্যাচের শুরুটা করে দিয়েছিলেন বিরাট কোহলি। আর শেষ করলেন বিজয় শঙ্কর।

শেষ ওভারে জিততে হলে অস্ট্রেলিয়ার দরকার ছিল ১১ রান। শেষ ওভারে কিছুটা ঝুঁকি নিয়েই বিজয় শঙ্করকে বল করে নিয়ে এসেছিলেনন বিরাট কোহলি। আর তাতেই এল সাফল্য। শেষ ওভারের দ্বিতীয় বলে মার্কাস স্তইনিসকে ফেরালেন এলডব্লুতে আর তৃতীয় বলে উড়ে গেল অ্যাডাম জাম্পার উইকেট। আর সেখানেই শেষ হয়ে গেল খেলা।

৪৯.৩ ওভারে ২৪২ রানে অস্ট্রেলিয়াকে অল-আউট করে আট রানে ম্যাচ জিতে নিল ভারত। এ দিন উইকেট পেলেন না মহম্মদ শামিই। তিন উইকেট নিলেন কুলদীপ যাদব। দুটো করে উইকেট যশপ্রীত বুমরা ও বিজয় শঙ্করের। একটি করে উইকেট নিলেন রবীন্দ্র জাডেজা ও কেদার যাদব।

প্রথম ম্যাচের দ্বিতীয় ম্যাচেও নাগপুরে টস জিতে নিয়েছিলেন অ্যারন ফিঞ্চ। এ দিন অবশ্য প্রথমে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠিয়েছিলেন তিনি। প্রথম ব্যাট করতে নেমে আবার ব্যর্থ ভারতের দুই ওপেনার রোহিত শর্মা (০) ও শিখর ধাওয়ান (২১)। কিন্তু তিন নম্বরে নেমে ভারতীয় ব্যাটিংয়ের হাল ধরেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। ১২০ বলে ১১৬ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। এর সঙ্গে ৪০টি ওডিআই সেঞ্চুরি করে ফেললেন তিনি। সঙ্গে অধিনায়ক হিসেবে করে ফেললেন দ্রুততম ৯০০০ রান। এই রেকর্ড আগে ছিল রিকি পন্টিংয়ের।

হার ভারতের, ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার কাছে টি২০ সিরিজ হাতছাড়া বিরাটদের

বিরাট কোহলির বড় রান করলেন বিজয় শঙ্কর। তাঁর ব্যাট থেকে এল ৪১ বলে ৪৬ রান।। এ ছাড়া আর কেউ ভরসা দিতে পারেননি। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের আবিষ্কার বিজয় শঙ্কর। যদিও ওভার শেষ করতে পারেনি ভারতও। ৪৮.২ ওভারে ২৫০ রানেই শেষ হয়ে যায় ভারতের ইনিংস।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২৪২ রানে শেষ হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়া দুই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ (৩৭) ও উসমান খোয়াজা (৩৮) ভালই শুরু করেছিলেন। কিন্তু টিকে থাকতে পারেননি। এর পর পিটার হ্যান্ডসকম্ব ৪৮ রান করে কিছুটা ভরসা দিলেন। এর পর হাল ধরেন মার্কাস স্তইনিস। ৬৫ বলে ৫২ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তিনি টিকে থাকলে জিইতেও যেতে পারত অস্ট্রেলিয়া। যদি না শেষ ওভারে তাঁকে প্যাভেলিয়নে ফেরাতেন বিজয় শঙ্কর।

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)