সুশান্তের মানসিক সমস্যা ছিল, দুই ডাক্তারের বয়ানে উঠে এল এমন তথ্য

ধাক্কা খেল নার্কোটিক্সের তদন্ত

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: সুশান্তের মানসিক সমস্যা ছিল কিনা তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছিল তাঁর মৃত্যুর পর থেকেই। তাঁর প্রেমিকা সুশান্তের মানসিক সমস্যার কথা জানালেও তাঁর পরিবার সেটা মেনে নেয়নি। এই অবস্থায় সুশান্ত সিং রাজপুতের দুই ডাক্তারের বয়ান খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। তাঁদের বয়ানে জানা গিয়েছে, সত্যিই মানসিক সমস্যায় ভুগছিলেন সুশান্ত।

জানা যাচ্ছে মুম্বই পুলিশকে এই দুই চিকিৎসক এমনই বয়ান দিয়েছেন। যা ঘিরে তৈরি হয়েছে নতুন প্রশ্ন। সেই দুই ডাক্তার জানিয়েছেন, ‘বাইপোলার ডিজঅর্ডার’ ছিল সুশান্তের। সঙ্গে দুশ্চিন্তা, ঘুম না হওয়ার মতো নানা সমস্যা। একটি সাক্ষাৎকারে সুশান্তকে বলতেও শোনা গিয়েছিল তিনি দু’ঘণ্টার বেশি ঘুমোতে পারেন না, তার ইনসোমনিয়া রয়েছে।

সুশান্তের দুই ডাক্তার জানিয়েছিলেন, একটা সময় সুশান্ত ওষুধ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলেন। তাঁর দৃঢ় বিশ্বাস হয়ে গিয়েছিল তিনি আর সুস্থ হবেন না। এবং তাঁর বেঁচে না থাকার ইচ্ছের কথাও নাকি তিনি ডাক্তারকে জানিয়েছিলেন। ডাক্তার জানিয়েছিলেন, সুশান্তকে প্রতিবারই তাঁর কাছে নিয়ে যেতেন রিয়া চক্রবর্তী।

অন্য আর একজন ডাক্তার জানিয়েছেন, সুশান্তের এই সমস্যা অনেক পুরনো। যা ২০ বছর বয়স থেকেই শুরু হয়েছিল এবং সে সম্পর্কে সচেতন ছিলেন অভিনেতা তবে চিকিৎসা মেনে চলছিলেন না তিনি।

২০১৯-এর নভেম্বরে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন সুশান্ত। সেই সময় তাঁর ম্যানেজার ছিলেন শ্রুতি মোদী। তিনি ডাক্তারকে বলেছিলেন, সুশান্তের চিকিৎসার প্রচন্ড দরকার রয়েছে। তাঁর চিকিৎসা করা ডাক্তার এমনটাই জানিয়েছিলেন মুম্বই পুলিশকে। এই বছর জানুয়ারিতে রিয়া ডাক্তারকে বলেন সুশান্তকে আবার ভর্তি করে নিতে কিন্তু পরে তিনি আবার জানান, অভিনেতা তাতে রাজি হচ্ছে না এবং তিনি চণ্ডিগড়ে তাঁর দিদির বাড়ি যাচ্ছেন।

হিন্দুজা হাসপাতালে ভর্তি থাকার সময় তাঁকে যে ডাক্তার দেখেছিলেন, তিনি জানান ২৮ নভেম্বর সকাল ন’টায় তিনি সুশান্তকে প্রথম হাসপাতেল দেখেন এবং তাঁকে পরীক্ষা করেন। সেই সময় সুশান্ত ডাক্তারকে জানিয়েছিলেন, তিনি ঘুমোতে পারছেন না, খেতে পারছেন না, জীবনে কোনও কিছুই তাঁর ভাল লাগছে না। তিনি বাঁচতে চান না, তাঁর সব সময় ভয় লাগছে। গত ১০ দিন তিনি এই সমস্যার শিকার বলে জানিয়েছিলেন সুশান্ত। ডাক্তার তাঁর কাছে জানতে চেয়েছিলেন, আত্মহত্যার কথা মনে হয় কিনা। সেই সময় সুশান্ত জানিয়েছিলেন, ‘না’।

৩০ নভেম্বর তিনি হঠাৎই হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়ার আর্জি জানাতে শুরু করেন। তাঁর শারীরিক পরিস্থিতি দেখে ওষুধ দিয়ে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হয়। সেই সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন রিয়া।

(বিনোদন জগতের আরও খবরের জন্য ক্লিক করুন এই লিঙ্ক)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)