রাজীব এ বার কুণালের বাড়িতে, তৃণমূলে ফেরা নিয়ে জোর জল্পনা

রাজীব এ বার কুণালের বাড়িতেযেদিন দল ছেড়েছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়

জাস্ট দুনিয়া ব্যুরো: রাজীব এ বার কুণালের বাড়িতে গেলেন। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে পাঁচটা নাগাদ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় যান কুণাল ঘোষের রাজা রামমোহন রায় রোডের বাড়িতে। দু’জনের মধ্যে ঘণ্টাখানেকের নিভৃত বৈঠকও হয়। তার পর থেকেই জল্পনা শুরু হয়েছে, তবে কি রাজীবের তৃণমূলে ফেরার তোড়জোড় শুরু হয়েছে! তবে বৈঠক শেষে দু’জনেই যদিও দাবি করেছেন, ‘একেবারেই সৌজ্যন্য সাক্ষাৎ’। শুক্রবার বিকেলেই তৃণমূলে ছেলে শুভ্রাংশুকে নিয়ে ফিরে এসেছেন বিজেপি-র সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি মুকুল রায়। শনিবার সকাল থেকেই মুকুল বিজেপি-র একাধিক বিধায়ককে ফোন করেন বলে জানা যায়। তবে সেই তালিকায় রাজীব স্বভাবতই ছিলেন না।

ডোমজুড় থেকে বিজেপি-র হয়ে ভোটে দাঁড়ালেও বিপুল ভোটে তিনি তৃণমূলের কল্যাণ ঘোষের কাছে হেরে যান। কয়েক দিন আগেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট করে রাজীব বিজেপি-র নীতির সমালোচনা করেছিলেন। রাজ্যে বিপুল জনমত নিয়ে আসা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের সমালোচনারও বিরোধিতা করেছিলেন। তখন থেকেই জল্পনা শুরু। শনিবার সেই জল্পনা মাত্রা ছাড়ায় রাজীব এ বার কুণালের বাড়িতে যাওয়ায়।

কুণালের বাড়ি থেকে বেরিয়ে রাজীব জানান, মানিকতলায় তাঁর এখ আত্মীয় অসুস্থ। তাঁকেই দেখতে এসেছিলেন। পূর্ব পরিচিত কুণাল কাছেই থাকেন বলে তিনি দেখা করতে এসেছিলেন। কুণালও একই কথা জানিয়ে বলেন, ‘‘এটা সৌজন্য সাক্ষাৎকার।’’ তবে রাজ্য রাজনীতির খবর যাঁরা রাখেন, তাঁদের কাছে এই ‘সাক্ষাৎকার’ নিছক সৌজন্যের নয়। এর পিছনে এবং সামনে অনেক অঙ্ক রয়েছে। সিঁড়িভাঙা সে অঙ্ক রাজীব তৃণমূলে ফের যোগ দেওয়ায় সমাধান হবে কি না তা সময় বলবে।

গত ২৯ জানুয়ারি তৃণমূল ছাড়ার কথা দলীয় নেতৃত্বকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছিলেন রাজীব। তার আগে যদিও মন্ত্রিত্ব এবং বিধায়ক পদ ছেড়েছিলেন। বিধানসভায় পদত্যাগপত্র জমা দিতে এশে ফিরে যাওয়ার সময় তিনি বগলদাবা করে নিয়ে গিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি ছবি। বিধানসভায় তাঁ জন্য যে ঘর বরাদ্দ ছিল, সেই ঘরেই ওই ছবি রাখা থাকত। বিধানসভা থেকে বেরনোর সময় তাঁকে কাঁদতেও দেখা গিয়েছিল। এর কয়েক দিনের মধ্যেই চাটার্ড বিমানে করে দিল্লি যান রাজীব। বিজেপিতে যোগ দেন। তার পর ডোমজুড়ের টিকিট পান। সেখানে বিধানসবা নির্বাচনে তিনি প্রায় ২০ হাজার ভোটের বেশি ব্যবধানে হারেন। এর পর থেকেই বিজেপিতে ‘নীরব’ হয়ে যান রাজীব।

রাজীব এ বার কুণালের বাড়িতে যাওয়ায় তীব্র কটাক্ষ করেছেন তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর মতে, ‘‘রাজীবের যে কোনও মূল্য নেই, সেটা আমরা প্রমাণ করে দিয়েছি। ওকে ফের দলে নিলে উপকার হবে কি না সেটা জানি না। সে সিদ্ধান্ত শীর্ষ নেতৃত্ব নেবেন। দলনেত্রী তো বলেই দিয়েছেন গদ্দারদের কোনও ভাবেই ফেরানো হবে না। রাজীব যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে অনেক বাজে কথা বলেছেন, তার ভিডিও আমার কাছে আছে।’’ দলে ফেরানো হবে কি না, সেটা মমতা-অভিষেক দেখবেন বলে জানিয়েছেন কল্যাণ। তিনি আরও বলেন, ‘‘রাজীব কুণাল বলছেন, এটা সৌজন্য সাক্ষাৎ। শুধু ওঁদেরই বুদ্ধি আছে! আমাদের নেই!’’

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)