হেফাজতেই সুব্রত-ফিরহাদ-মদন-শোভন, ফের সুনানি বৃহস্পতিবার

ভুয়ো টিকা মামলা

জাস্ট দুনিয়া ব্যুরো: হেফাজতেই সুব্রত-ফিরহাদ-মদন-শোভন অন্তত বৃহস্পতিবার শুনানি শেষ হওয়া পর্যন্ত। বুধবার দুপুর ২ টোয় শুরু হয়েছিল শুনানি। সেখানে প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে চলে যুক্তি, পাল্টা যুক্তির পালা। শেষ পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত আসতে পারেনি আদালত। যার ফলে আবারও শুনানি দিন জানানো হয় এবং ততক্ষণ এই তিন হেভিওয়েট নেতাকে থাকতেই হচ্ছে হেফাজতে। তাঁদের মধ্যে তিন জনই শারীরিক কারণে রয়েছেন এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ণ বিভাগে চিকিৎসারত।

তাঁরা হলেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়। অসুস্থ হলেও হাসপাতালে যেতে চাননি ফিরহাদ হাকিম। মঙ্গলবার তাঁর জ্বর আসায় এদিন কোভিড পরীক্ষাও করা হয়। তবে তাঁর পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে।

এদিন আদালতে ঘুরে ফিরে আসে গ্রেফতারির দিন নিজাম প্যালেসের ঘটনা। এক, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সেখানে পৌঁছে রীতিমতো ধর্ণায় বসে যাওয়া এবং তৃণমূল কর্মী ও সদস্যদের তরফে আইন হাতে নিয়ে তাণ্ডব করা। তবে মুখ্যমন্ত্রীর সেখানে পৌঁছনো যে প্রভাব খাটানোর পর্যায়ে পরে না তা বোঝানোর চেষ্টা করেন অভিষেক মনু সিংভি।

বিচারপতি মমতার সিবিআই দফতরে ৫-৬ ঘণ্টা বসে থাকা এবং আইনমন্ত্রীর শুনানি চলাকালীন নিম্ন আদালতে হাজির থাকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বিচারপতি বলেন, এই ঘটনা অস্বাভাবিক। তবে নিজাম প্যালেসে যে সেদিন মুখ্যমন্ত্রীর জন্য অশান্তি হয়নি তা পরিষ্কার করে জানিয়ে দেন রাজ্যের আইজীবী। বরং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাধ্যমে সবাইকে শান্ত থাকারই আর্জি জানিয়েছিলেন তিনি। এবং বিক্ষোভকে অতিরঞ্জিত করে দেখানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়।

সিবিআই-এর আইনজীবী তুষার মেহতা অবশ্য এই পুরো ঘটনাকে পরিকল্পিত বলে আখ্যা দিয়েছেন আদালতে। আর এই উন্মক্ত জনতা এবং মমতার সেখানে তাঁকে গ্রেফতার করতে ব‌লার কারণেই সিবিআই-এর আইনজীবী জামিনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বলে দাবি করেন তিনি। এর মধ্যে করোনা পরিস্থিতিতে জেল কতটা জরুরী তা নিয়ে সিবিআই-এর কাছে জানতে চায় আদালত।

প্রশ্ন উঠেছে বিনা নোটিসে গ্রেফতার নিয়েও। প্রশ্ন উঠেছে গত পাঁচ বছর ধরে চুপচাপ কেন বসেছিল সিবিআই। ২০১৬ থেকে ২০২১ পর্যন্ত এই মামলায় কেন কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হল না। কেনই বা সিবিআই পুলিশের সাহায্য না নিয়ে সরাসরি আদালতে হাজির হল?

এর পর শেষে পাঁচ মিনিটের বিরতি নিয়ে বিচারপতি সুব্রতদের আইজীবীদের সঙ্গে কিছুক্ষণ কথা বলেন। তার পরই ফিরে এসে বৃহস্পতিবার শুনানির কথা জানিয়ে দেন বিটারপতি। বৃহস্পতিবার দুপুর ২ টোয় আবার শুনানি হবে সুব্রত, ফিরহাদ, মদন ও শোভনের। ততক্ষণ বাড়ি ফেরা হচ্ছে না কারও।

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)