উপনির্বাচনে চার কেন্দ্রেই বামেদের প্রার্থী, কংগ্রেসের সঙ্গে জোট অতীত

উপনির্বাচনে চার কেন্দ্রেই বামেদের প্রার্থী

জাস্ট দুনিয়া ব্যুরো: উপনির্বাচনে চার কেন্দ্রেই বামেদের প্রার্থী ঘোষণা করা হল সোমবার। গত বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বেধেছিল সিপিএম। কিন্তু সম্প্রতি সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি জানিয়েছিলেন, ভোট ছিল, জোট ছিল। ভোট শেষ, জোট শেষ। তারই ফল মিলল সোমবার। রাজ্যের চার বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে নিজেদের প্রার্থী ঘোষণা করল বামেরা। আগামী ৩০ অক্টোবর রাজ্যের চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন— দিনহাটা, শান্তিপুর, খড়দহ এবং গোসাবা। সম্প্রতি নির্বাচন কমিশন ওই চার কেন্দ্রে উপনির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করেছে। রবিবার ভবানীপুরের ফল ঘোষণার পরই তৃণমূলের তরফে তাদের প্রার্থীতালিকা প্রকাশ করা হয় ওই চার কেন্দ্রের জন্য।

দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ওই প্রার্থীতালিকা ঘোষণা করেন। তিনি জানান, দিনহাটায় উদয়ন গুহ, শান্তিপুরে ব্রজকিশোর গোস্বামী এবং খড়দহে শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় দাঁড়াবেন। রাতে তৃণমূল ঘোষণা করে, গোসাবায় সুব্রত মণ্ডল দলের প্রার্থী হবেন। রবিবার তৃণমূলের ঘোষণার পর সোমবার বামেরাও তাদের তালিকা ঘোষণা করে দিল। এবং চার কেন্দ্রেই তারা প্রার্থী দিয়েছে। কংগ্রেস যদিও এখনও তাদের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেনি। বামেদের সঙ্গে তাদের কোনও আলোচনা হয়েছে কি না তা-ও জানা যায়নি। যদিও ওই চার কেন্দ্রের মধ্যে তিনটিতেই আগের নির্বাচনে বামেরাই প্রার্থী দিয়েছিল। একমাত্র শান্তিপুরে জোটের পক্ষে কংগ্রেস প্রার্থী দেয়। সেখানে দাঁড়িয়েছিলেন ঋজু ঘোষাল।

সোমবার বিকেলে বামফ্রন্টের পক্ষে জানানো হয়েছে, দিনহাটায় ফরওয়ার্ড ব্লকের আব্দুর রউফ উপনির্বাচনে লড়বেন। খড়দহে সিপিএমের দেবজ্যোতি দাস এবং গোসাবায় আরএসপি-র অনিলচন্দ্র মণ্ডল ভোট লড়বেন। আর শান্তিপুরে সিপিএমের হয়ে লড়বেন সৌমেন মাহাতো। কিছু দিন আগে কলকাতায় এসে ইয়েচুরি বলেছিলেন, “ভোট ছিল, জোট ছিল। ভোট শেষ। জোট শেষ।’’ তিনি আরও বলেছিলেন, “জনতা পার্টি এসেছিল ইন্দিরা গান্ধীকে হারাতে। হারিয়ে দেওয়ার পরেই জনতা পার্টি শেষ। তাৎক্ষণিক কারণেই ফ্রন্ট তৈরি হয়। ইভেন্ট শেষ হলে আর কারণটাই থাকে না।’’

তৃণমূল এবং বামেরা তাদের প্রার্থী ঘোষণা করলেও এখনও বিজেপি তাদের কোনও প্রার্থীতালিকা প্রকাশ করেনি। এমনকি কংগ্রেসও নয়। এই চার কেন্দ্রে উপনির্বাচন হচ্ছে কারণ, গোসাবা এবং খড়দহে ভোটের ফল প্রকাশের পর করোনার কারণে মারা যান তৃণমূলের বিধায়ক জয়ন্ত নস্কর এবং কাজল সিংহ। এই দুই কেন্দ্র বিধায়কশূন্য হয়ে যায়। পাশাপাশি দিনহাটা এবং শান্তিপুরে জেতা বিজেপি বিধায়ক নিশীথ প্রামাণিক এবং জগন্নাথ সরকার তাঁদের সাংসদ পদ ধরে রাখতে বিধায়ক পদ থেকে পদত্যাগ করেন। ফলে ওই দুই কেন্দ্রও বিধায়কশূন্য হয়ে পড়ে। ৩০ অক্টোবর ওই চার কেন্দ্রেই ভোট।

প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)