ফেক ভিডিও ও পোস্ট নিয়ে কড়া বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী

ফেক ভিডিও

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক:  ফেক ভিডিও ও পোস্ট সোশ্যাল মিডিয়া। ছড়িয়ে পড়া নতুন কোনও ঘটনা নয়। তবে সেই ভুয়ো তথ্য যদি মানুষ, পরিবেশ, সমাজের ক্ষতি করে তাহলে সেটাকে কড়া হাতে সামলাতেই হবে। ‘‘সোশ্যাল মিডিয়ায় তো এই সব চলে’’, বলে হাত-পা গুটিয়ে বসে থাতা যাবে না। তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রীত্বের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেওয়ার পর থেকেই একের পর এক কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়ে চলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কোভিড নিয়ে রাজ্যকে সতর্ক করার মধ্যেই ফেক ভিডিও নিয়ে বিধানসভার প্রথম দিন বার্তা দিলেন তিনি।

তিনি বিধানসভায় বিরোধীদের উদ্দেশে বলেন, ‘‘আমরা হিংসা পছন্দ করি না। আমরা শান্তির পক্ষে। যেখানে জিতেছেন সেখানে অশান্তি ছড়াবেন না। ফেক ভিডিও ব্যবসায় পরিণত হয়েছে।’’ তিনি জানিয়েছেন, ভিডিওর জন্য সাম্প্রদায়িক সমস্যা দেখা দিতে পারে সেটা কোনওভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। তাই পুলিশকে ইতিমধ্যেই তিনি নির্দেশ দিয়েছেন, যথোপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়ার। আপস করা হবে না এক্ষেত্রে।

তিনি বিধানসভায় বলেন, রাজ্যে কোথাও কোনও অশান্তি সহ্য করা হবে না। খবর পেলেই সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে জানানোর নির্দেশ দেন তিনি। তাঁর বক্তব্য বিজেপি ফেক ভিডিও ছড়িয়ে অশান্তির সৃষ্টি করছে। তাদের সফল হতে দেওয়া যাবে না। এদিনও তিনি নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। তাঁর দাবি সঠিক পদ্ধতিতে ভোট হলে বিজেপি ৩০টি আসনও পেত না।

ভুয়ো ভিডিও ছড়ানোর জন্য ইতিমধ্যেই দু’জন ছাত্রকে দক্ষিণ কলকাতা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ বার এরকম হলেই তাঁকে গ্রেফতার করা হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। অশান্তি ছড়ায়ে কাউকে রেয়াৎ করা হবে না।

প্রসঙ্গত, নির্বাচনের ফলের পরই একটি অশান্তির ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছিল। যেখানে দেখা যাচ্ছে আগুন জ্বলছে একটি বাড়িতে। পরে জানা যায় সেটি অনেক পুরনো একটি ভিডিও। শুধু কী তাই, শীতলকুচিতে এক বিজেপি কর্মী খুন হয়েছে বলে যাঁর ছবি ছড়িয়ে পড়েছিল পরে দেখা যায় সেই ছবি একজন সাংবাদিকের এবং তিনি সুস্থ শরীরেরই রয়েছেন দিল্লিতে। তিনি নিজে টুইট করে সে কথা জানিয়েছেন। এরকম নানা ভুয়ো কাণ্ডকারখানা ঘটে চলেছে রাজ্য জুড়ে। আইন হাতে আসতেই সেই সবকে সবার আগে বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)