দুর্গাপুজো হবে কোভিডবিধি মেনেই, ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রী মমতার

উৎসবে বিধিনিষেধ

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: দুর্গাপুজো হবে কোভিডবিধি মেনেই, মঙ্গলবার এই ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে রাতে দর্শনার্থীদের ঠাকুর দেখার ব্যাপারে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলেই জানিয়েছেন তিনি। এ দিন নেতাজি ইন্ডোরে পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে বৈঠকে বসেন মমতা। সেখানে তিনি জানান, গত বছর পুজোর আগে রাজ্য সরকার যে নিয়ম চালু করেছিল, এ বছরের পুজোতেও তা বজায় থাকবে। পুজো কমিটিগুলিকে আশ্বস্ত করে মমতা জানিয়েছেন, পুজো করার ক্ষেত্রে কোনও রকমের অসুবিধাই হবে না। তবে কোভিডবিধি মেনেই সবটা করতে হবে। মাস্ক, স্যানিটাইজারের বন্দোবস্তও রাখতে হবে মণ্ডপ চত্বরে। খোলামেলা মণ্ডপের পাশাপাশি গোটা চত্বর নিয়মিত স্যানিটাইজ করার কথাও বলেছেন তিনি। প্রয়োজনে মণ্ডপ থেকে মাস্ক বিলিও করতে হবে।

গত বছর পুজোর আগে রাজ্য সরকার একটি নির্দেশিকা দেয়। কিন্তু অতিমারি পরিস্থিতিতে দুর্গাপুজো হবে কোভিডবিধি মেনেই, এমন সরকারি ‘অনুমতি’র বিরোধিতা করে কলকাতা হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা হয়। এর পরেই হাইকোর্ট রাজ্যের সমস্ত পুজো মণ্ডপকে ‘নো এন্ট্রি জোন’ হিসাবে ঘোষণা করে। আদালতের নির্দেশ কতটা মানা হল, তা হলফনামা দিয়ে পুলিশকে জানানোর নির্দেশও দেওয়া হয়।

শুধু তাই নয়, আদালত নির্দেশ দেয় পুজোর ছোট মণ্ডপের ক্ষেত্রে ৫ মিটার দূরত্বে এবং বড় মণ্ডপের চারপাশে ১০ মিটার দূরত্বে ব্যারিকেড দিতে হবে। ছোট মণ্ডপের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ১৫ জন ও বড় মণ্ডপের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ২৫-৩০ জন ঢুকতে পারবেন। তাঁদের নামের তালিকা মণ্ডপের বাইরে ঝুলিয়ে রাখতে হবে। তা বদলানো যাবে না। দূরত্ব-বিধি মানার দায়িত্ব নিতে হবে উদ্যোক্তা ও পুলিশকে। এতেই বিপাকে পড়ে যায় পুজো কমিটিগুলো।

রাজ্য সরকারের এ বারের পুজোর অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে এখনও পর্যন্ত আদালতে কোনও মামলা দায়ের হয়নি। তবে পুজোর এখনও এক মাস বাকি। মমতা যদিও জানিয়েছেন, গত বার পুজোর সময় নাইট কার্ফুতে ছাড় দেওয়া হয়েছিল। এ বার কী করা যায়, তা নিয়ে কয়েক দিন পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে। তিনিও বলেছেন, হাতে এখনও কিছুটা সময় আছে। পুজোর কার্নিভাল নিয়েও এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। মমতার কথায়, ‘‘পরিস্থিতি কোন দিকে গড়ায়, তা দেখেই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’’

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)