কোভিড আতঙ্কে লোকাল ট্রেন, বাড়ছে কর্মীদের মধ্যে সংক্রমণ

কোভিড আতঙ্কে লোকাল ট্রেন

জাস্ট দুনিয়া ব্যুরো: কোভিড আতঙ্কে লোকাল ট্রেন কর্মী ও তার যাত্রীরা। মুহূর্তে প্রচুর পরিমানে ছড়িয়ে পড়া করোনা সংক্রমণের অনেকটাই যে হচ্ছে লোকাল ট্রেনে তা প্রমান হয়ে গিয়েছে। কারণ সাধারণ মানুষের পাশাপাশি রেলকর্মীদের মধ্যে এই ভাইরাসের প্রকোপ দেখা যাচ্ছে প্রবল পরিমানে।

দেশে প্রথম করোনাভাইরাসের দাপট শুরু হওয়ার পর সব থেকে প্রভাব পড়েছিল লোকাল ট্রেনের উপর। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল দুই শাখারই ট্রেন চলাচল যাতে সমস্যায় পড়েছিল সাধারণ মানুষ। প্রচুর মানুষের রুটিরুজি নির্ভর করে এই লোকাল ট্রেনের উপর।

শহরতলীর বিভিন্ন জায়গা থেকে প্রতিদিন লাখ লাখ মানুষ কলকাতা শহরে আসে জীবিকা নির্বাহের জন্য। কিন্তু রেলকর্মীদের মধ্যে ভাইরাসের আক্রমণে নতুন করে ভাবতে শুরু করেছে রেল।

ইতিমধ্যেই শিয়ালদহ শাখায় ৩৫ জন চালক ও গার্ড সংক্রমিত হয়েছেন। যার ফলে যে পরিমান চালক ও গার্ডের প্রয়োজন হয় প্রতিদিন তাও ধাক্কা খেয়েছে। বাধ্য হয়েই কমানো হয়েছে ট্রেনের সংখ্যা। বাতিল হয়েছে বেশ কিছু ট্রেন। যার ফলে ট্রেনের ভিড় দ্বিগুন হয়েছে।

এমনিতেই লোকাল ট্রেন চালু হওয়ার পর শুরুতে খুব কম সময়ের জন্য মানুষ নিয়মবিধি মানতে পেরেছিল। কিন্তু তার পর থেকে যেই কে সেই। ভিড়ে ঠাসাঠাসি অবস্থা সব ট্রেনে। লোকাল ট্রেনে স্বাস্থ্যবিধি মানা একদমই অসম্ভব। অফিসের সময় সকলেই চাইবে সময় মতো পৌঁছতে। যার ফলে ভিড়েই ঠাসাঠাসি করে তাঁরা ট্রেনে উঠবে। ট্রেন পুরোপুরি বন্দ না করলে এই পরিস্থিতি সামাল দেওয়া মুশকিল।

পরিস্থিতি যাতে নিয়ন্ত্রণের বাইরে না চলে যায় তার জন্য তড়িঘড়ি গুরুত্ব বুঝে ট্রেন চলাচল কমানো হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে আবার পুরোপুরি লোকাল ট্রেন বন্ধ করা প্রায় অসম্ভব। সাধারণ মানুষ বিপদে পর্বে আবার তাতে। তবে বিষয়টি এখনও সাময়িক সিদ্ধান্ত ভবিষ্যতে নিয়ম করেই কমিয়ে দেওয়া হতে পারে ট্রেন চলাচল।

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)