কোভিড কালে ভোট, কলকাতা হাইকোর্টের ভৎসর্না নির্বাচন কমিশ‌নকে

ভুয়ো টিকা মামলা

জাস্ট দুনিয়া ব্যুরো: কোভিড কালে ভোট তাও আবার মাস জুড়ে আট দফার। যার ফলে ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখি আক্রান্তের সংখ্যা। তাতেও কোনও হুঁশ নেই নির্বাচন কমিশনের। এবার চূড়ান্ত ভৎসর্নার মুখে পড়তেহল কমিশনকে। বৃহস্পতিবার রাজ্যে চলছে ষষ্ঠ দফার ভোট তার মধ্যেই কলকাতা হাইকোর্টের এই মন্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ। করোনার প্রকোপ ক্রমশ বাড়তে থাকায় রাজ্য সরকারের তরফে শেষ কয়েক দফার ভোট এক সঙ্গে করার অনুরোধ করা হয়েছিল কমিশনের কাছে। কিন্তু সঙ্গে সঙ্গেই তা নাকচ হয়ে যায়। এই অনুরোধ চার দফার ভোটের পর থেকেই করা হচ্ছিল।

প্রথমে চার দফা এক সঙ্গে করার কথা বলা হয়। তার পর বলা হয় শেষ তিন দফা। প্রতিবারই নির্বাচন কমিশন জানায়, এক সঙ্গে সবহ দফা করা হলে যে পরিমান নিরাপত্তা ব্যবস্থা করতে হবে সেই ক্ষমতা রাজ্যের নেই, যে কারণে তা হচ্ছে না। এদিন ষষ্ঠ দফার ভোট। শেষ দুই দফার ভোট এখনও বাকি। শেষ পর্যন্ত সেই দুটো এক সঙ্গে করার কথা বলা হলে তাও নাকচ করে দেওয়া হয়েছে।

ইতিমধ্যেই কোভিড কালে ভোট করার বিরুদ্ধে আদালতে অনেক জনস্বার্থ মামলার শুনানির সময়ই প্রধান বিচারপতির কমিশনকে একহাত নিয়েছে। তাদের দায়সারা কাজের সমালোচনা করেছে। করোনাবিধি আদৌ মানা হচ্ছে কিনা সে খবর নেই কমিশনের কাছে। তা যে সঠিকভাবে কাজ করছে না, সেটা বার বার বুঝিয়ে দিয়েছে আদালত।

কমিশনের হাতে যে বিপুল পরিমাণে ক্ষমতা রয়েছে সেটার কথা বার বার তুলে ধরে আদালত। কিন্তু কমিশন সেই ক্ষমতা যথোপযুক্তভাবে কাজে লাগাচ্ছে না। টি এন শেষনের উদাহরণ টেনে তুলনা করে বলেছে, তাঁর ১০ শতাংশ কাজও করতে পারবে বলে মনে হয় না এই কমিশন।

এখনও আরও দু’দফার ভোট বাকি। তার পর ২ মে নির্বাচনের ফল। হার-জিৎ, উৎসব সব বাকি পড়ে রয়েছে। সব শেষে মানুষ যখন হিসেবে খাতা খুলবে তখন কোভিড পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে তার কল্পনা করা অসম্ভব।

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)