দুর্গাপুজো দেখা যাবে তৃতীয়া থেকেই, কমিটিগুলোকে ৫০ হাজার করে অনুদান: মুখ্যমন্ত্রী

দুর্গাপুজো

জাস্ট দুনিয়া ব্যুরো: দুর্গাপুজো এ বার তৃতীয়া থেকেই শুরু হয়ে যাবে। অন্তত ওই দিন থেকে প্যান্ডেলে প্যান্ডেলে প্রতিমা দেখা যাবে। বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোরে পুলিশ-প্রশাসন-পুজো কমিটিগুলোর বৈঠকে এমন ইঙ্গিতই দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একই সঙ্গে পুজো কমিটিগুলোকে ৫০ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

করোনা আবহে এমনিতে রাজ্য জুড়ে নানা রকমের বিধি নিষেধ চালু রয়েছে। সেই সব বিধিনিষেধ মেনেই পুজো করার কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘মণ্ডপে ভিড় করা যাবে না। প্রত্যেকেই মাস্ক পরতে হবে। সিঁদুরখেলা, প্রসাদ বিতরণ বা অঞ্জলি দেওয়ার সময় আমাদের অনেক সতর্ক থাকতে হবে। সংক্রমণের ক্ষেত্রে কোনও রকম ঝুঁকি নেওয়া যাবে না।’’

 

বাংলার আরও খবর জানতে ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

পুজো উদ্যোক্তাদের উদ্দেশে তিনি চার ধার খোলামেলা প্যান্ডেল করার কথা বলেন। মণ্ডপে ঢোকা এবং বেরনোর আলাদা পথ করতে হবে। দরকার পড়লে চক দিয়ে গোল দাগ কেটে দেওয়া যেতে পারে। হ্যান্ড স্যানিটাইজার, মাস্কের ব্যবস্থা করতে হবে পুজো কমিটিগুলোকেই। কেউ যদি মাস্ক না পরে মণ্ডপে আসেন, সে ক্ষেত্রে তাঁকে অনুরোধ করতে হবে মাস্ক পরার। পুলিশ এবং কমিটির স্বেচ্ছাসেবকদের বাধ্যতামূলক ভাবে মাস্ক এবং ফেস শিল্ড পরার কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী।

দেখুন মুখ্যমন্ত্রীর সেই বৈঠক…

মমতা এ দিন পুজো কমিটিগুলোকে আর্থিক সাহায্য করার কথা বলেন। তিনি জানান, সাধ্যমতো সাহায্য করা হবে ক্লাবগুলোকে। তাঁর কথায়, ‘‘হাতে টাকা নেই। প্রায় ৩৭ হাজার পুজো কমিটির নাম নথিভুক্ত রয়েছে। তার মধ্যে কলকাতাতেই আড়াই হাজার। এ বার পরিস্থিতি খারাপ। তাই পুজো কমিটিগুলিকে ৫০ হাজার টাকা করে উপহার দেওয়া হবে।’’

এই আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি পুজো কমিটিগুলোকে নানা ধরনের ছাড় দেওয়ার কথাও ঘোষণা করেন মমতা। তিনি জানান, দমকল-পুরসভা-পঞ্চায়েত থেকে পুজোর অনুমতি নেওয়ার সময় উদ্যোক্তাদের কোনও রকমের ফি দিতে হবে না। এমনকি বিদ্যুৎ নেওয়ার ক্ষেত্রেও বিলে ৫০ শতাংশ ছাড় পাবে কমিটিগুলো।

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)