স্কুলের বকেয়া ৫০ শতাংশ ফি দিতেই হবে, নির্দেশ আদালতের

ভোট পরবর্তী হিংসা মামলা

জাস্ট দুনিয়া ব্যুরো: স্কুলের বকেয়া ৫০ শতাংশ ফি যাতে অভিভাবকরা স্কুলকে দিয়ে দেয় এদিন সেই নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। আগামী দু’বছর ধরে যে সব ছাত্রছাত্রীদের স্কুলের ফিস বকেয়া রয়ে গিয়েছে, তাদের অভিভাবকদের আদালতের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আগামী তিন সপ্তাহের মধ্যে এই বকেয়া স্কুলকে মিটিয়ে দিতে হবে। এমনটা না হলে পড়ুয়াদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেটা স্কুল বিশেষে যার যার নিয়ম অনুযায়ী। যারা মাধ্যমিক বা উচ্চমাধ্যমিক পাশ করেছে তাদের ক্ষেত্রে বকেয়া না মেটালে শংসাপত্র  না দেওয়ার নির্দেশ জারি করা হয়েছে। শনিবার বিচারপতি ইন্দ্রপ্রসন্ন মুখোপাধ্যায় ও বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

কোভিড পরিস্থিতি স্কুল এবং অভিভাবক টানাপড়েন চলছেই। এ নিত্যদিনের ঘটনা। এর আগে বকেয়ার ৮০ শতাংশ মিটিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু অভিভাবকরা সেই নির্দেশ অগ্রাহ্য করছে বলে স্কুলের তরফে অভিযোগ ওঠে। তার পরই তা কমিয়ে ৫০ শতাংশ করা হল। অভিভাবকদের আদালতের নির্দেশ আমান্যকে দুঃখজনক বলে ব্যাখ্যা করেছেন দুই বিচাপতি। ছাত্রছাত্রীদের টাকাতেই শিক্ষক-শিক্ষিকাদের মাইনে ভয় বেশিরভাগ বেসরকারি স্কুলে। প্রচুর টাকা সেক্ষেত্রে বকেয়া পড়ে রয়েছে।

স্কুল বন্ধ থাকলেও নিয়মিত অন-লাইন ক্লাস চলছে সব স্কুলেরই। নিজেদের সময় শিক্ষক, শিক্ষিকারা দিচ্ছেন ছাত্রছাত্রীদের ক্ষেত্রে। সে কারণেও স্কুলের বকেটা মিটিয়ে দেওয়া উচিৎ। অভিভাবকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, অতিমারির সুযোগ নিয়ে ইচ্ছাকৃত স্কুলের প্রাপ্য টাকা দিচ্ছেন না অনেক অভিভাবক। আদালতের পর্যবেক্ষণে ধরা পড়েছে, যাঁদের অবস্থা ভাল তাঁরাও এই সুযোগ নিচ্ছেন। এই প্রবণতা আটকাতে আদালত জানিয়ে দিয়েছে, ৩ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বকেয়া না মেটানো হলে স্কুল কর্তৃপক্ষ পড়ুয়াকে অনলাইন ক্লাস থেকে বাদ দেওয়ার পাশাপাশি স্কুল থেকেও বরখাস্ত করতে পারে।

এর সঙ্গে আদালত জানিয়েছে, এতে কাজ না হলে এক্ষেত্রে স্কুল লেট ফাইন হিসেবে জরিমানা করতে পারে। সঙ্গে কোনও নোটিস ছাড়াই পড়ুয়াকে স্কুল থেকে বিতাড়িত করতে পারে। এদিকে স্কুলগুলোর বিরুদ্ধেও অভিভাবকদের গুচ্ছের অভিযোগ রয়েছে। সেক্ষেত্রে পরিষেবা না দিয়ে বেশি টাকার নেওয়ার অভিযোগ তুলেছে অভিভাবকরা। তবে অভিভাবকদের অভিযোগ নিয়ে আদালত এখনই কিছু বলেনি। পরবর্তী সময়ে তা নিয়েও পর্যালোচনা হতে পারে বলে আশ্বস্থ করা হয়েছে।

(প্রতিদিন নজর রাখুন জাস্ট দুনিয়ার খবরে)

(জাস্ট দুনিয়ার ফেসবুক পেজ লাইক করতে ক্লিক করুন)