কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্মানিক ডিলিট পেলেন মমতা

প্রাথমিকে শিক্ষকমুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আচার্য কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর হাত থেকে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্মানিক ডিলিট গ্রহণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার ওই সাম্মানিক নেওয়ার সময় আবেগতাড়িত হয়ে মমতা বলেন, ‘‘আপনারা আমার জীবনকে পূর্ণ করে দিয়েছেন।’’
যদিও মমতা নিজে মনে করেন, তিনি এই সম্মানের যোগ্য নন। তাঁর কথায়, ‘‘আমি ক্ষুদ্র মানুষ। আমার এ সবের যোগ্যতা নেই। সারা জীবন লড়াই করতে করতে, মরতে মরতে একটা জায়গায় এসে দাঁড়িয়েছি।’’ এই বিশ্ববিদ্যালয়েরই প্রাক্তন ছাত্রী মমতা। অনুষ্ঠানে এসে বলেছেন, তিনি কখনও ভাবেননি, এ ভাবে এক দিন সমাবর্তনে ভাষণ দেবেন। আগেও অনেক প্রতিষ্ঠান তাঁকে এ ধরনের সম্মান দিতে চেয়েছিল। তিনি রাজি হননি। তবে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন এই ছাত্রী রাজ্যপালের হাত থেকে সাম্মানিক নেওয়ার সময় আবেগকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেননি। ডিলিট পাওয়ার পরে দীক্ষান্ত ভাষণে মমতা বলেন, ‘‘আমার জীবনটাই অবহেলার, অসম্মানের। এমনকী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যখন আমাকে এই সম্মান দেওয়ার কথা বলেছেন তখনও কম অসম্মান করা হয়নি।’’ এর পরেই তাঁর সংযোজন, ‘‘বিশ্বাস করুন আমি কিন্তু ডিগ্রিটা কোনও দিন ব্যবহার করব না। আপনারা আমাকে সাম্মানিক দিয়েছেন, সেটা সাম্মানিকই থাকবে।’’ এর আগে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় ডিলিট দিয়েছিল জ্যোতি বসুকে। যদিও তিনি তখন মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন না।