শাজিলা আবদুলরহমান ক্যামেরা বন্ধ করেননি অনেক আঘাত সহ্য করেও

শাজিলা আবদুলরহমান

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: শাজিলা আবদুলরহমান , হাতে ক্যামেরা তাক করা, চোখ দিয়ে টপ টপ করে পড়ছে জল, যন্ত্রণায় কুঁকড়ে যাচ্ছে মুখ কিন্তু ক্যামেরা চলা বন্ধ হয়নি। এমনই ছবি ছেয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কেরলের কইরালি টিভির ক্যামেরাপার্সন শাজিলা খবরের সন্ধানে গিয়েছিলেন শবরীমালা মন্দিরে

বুধবার সকালে সেখানে দু’জন মহিলা ঢুকে পড়ায় আবার উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল মন্দির চত্তর। শুরু হয়েছিল মন্দির বন্ধ করে শুদ্ধিকরণের কাজ। সেই সময় খব করতে রিপোর্টারর সঙ্গে সেখানে পৌঁছেছিলেন শাজিলা।

তিনি ভুলে গিয়েছিলেন, তিনি ক্যামেরাপার্সনের আগে একজন মহিলা যাঁর ওই চত্তরে ঢোকা নিষিদ্ধ। কাজ শুরু করতেই তাকে নানা ভাবে সেখান থেকে সরানোর চেষ্টা শুরু হয়। তাঁর পিঠে পড়তে শুরু করে কিল-চর। এক সময় ক্যামেরা কেড়ে নেওয়ারও চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তাঁকে টলানো যায়নি।

আমি ভয়ে কাঁদছিলাম না। আমি কাঁদছিলাম অপারগতার জন্য। আমি কী করতাম যদি পাঁচ ছ’জন মানুষ পিছন থেকে এসে আমার ক্যামেরা কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। আমাকে মেরে ফেলে দেয়। আমি কী করে পাল্টা আঘাত করব। — শাজিলা আবদুলরহমান

ফের অশান্ত শবরীমালা, এ বার আক্রান্ত  চিত্রসাংবাদিকও

আপাতত হাসপাতালে তিনি। গলায় চোটের জন্য কলার লাগাতে হয়েছে। সেখানে শুয়েই তিনি এনডিটিভিকে বলেন, ‘‘আমি ভয়ে কাঁদছিলাম না। আমি কাঁদছিলাম অপারগতার জন্য। আমি কী করতাম যদি পাঁচ ছ’জন মানুষ পিছন থেকে এসে আমার ক্যামেরা কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। আমাকে মেরে ফেলে দেয়। আমি কী করে পাল্টা আঘাত করব।’’

তিনি আরও বলেন, ‘‘আমি কাঁদছিলাম কারন আমি বুঝতে পারছিলাম গুরুত্বপূর্ণ ছবি আমি তুলতে পারছি না। সেই সময় আমাকে ব্যাটারিও পরিবর্তন করতে হয়েছে ক্যামেরার। আমি মানুষকে বোঝাতে চাইনি আমার কতটা কষ্ট হচ্ছিল। যে কারণে আমি ক্যামেরার পিছনে মুখ লুকোচ্ছিলাম।’’

এই ছবি ভাইরাল হয়ে যেতেই শাজিলার জন্য শুভেচ্ছাবার্তায় ভরে উঠেছে টুইটার। সুপ্রিমকোর্ট মন্দিরে সব মহিলাদের ঢোকার অনুমতি দেওয়ার পর এই প্রথম বুধবারই দু’জন মহিলা মন্দিরে ঢুকে পড়েছিলেন সবার চোখের আড়ালে। এর আগে অনেকেই চেষ্টা করেছেন কিন্তু পারেননি। এই দুই মহিলা ভোর ৩.৪৫-এ পায়ে হেঁটে পৌঁছেছিল মন্দিরে। পরে পুলিশ এসে তাঁদের নিয়ে যায়। এর পরই আন্দোলন শুরু করে রাইট-উইং গ্রুপ।

বুধবার এই খবর করতে গিয়ে আহত হয়েছে আরও তিনজন সাংবাদিক।

(দেশের যাবতীয় খবরের জন্য এখানে ক্লিক করুন)

Be the first to comment on "শাজিলা আবদুলরহমান ক্যামেরা বন্ধ করেননি অনেক আঘাত সহ্য করেও"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*