মিতালী-হরমনপ্রীত নিউজিল্যান্ড সফরে খেলবেন একে অপরের নেতৃত্বে  

মিতালী-হরমনপ্রীত

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: মিতালী-হরমনপ্রীত কিসসা এখন বহু চর্চিত। টি২০ বিশ্বকাপ ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলকে এমন প্রচারের আলো দেখিয়েছে যে তা থেকে এখনও বেরিয়ে আসতে পারেনি বিসিসিআই। প্রতিদিনই তৈরি হচ্ছে নতুন বিতর্ক। সে প্লেয়ার হোক বা কোচ। এমন কী এই বিতর্ক থেকে পিছিয়ে নেই কর্তারাও। সামেই নিউজিল্যান্ডি সিরিজ। সেখানে মিতালী রাজের নেতৃত্বে হরমনপ্রীত কাউরকে খেলতে হবে ওডিআই। আর অন্যদিকে, হরমনপ্রীতের অধিনায়কত্বে মিতালীকে খেলতে হবে টি২০তে।

টি২০ বিশ্বকাপে যে বিতর্ক ও খারাপ সম্পর্কের শুরু হয়েছিল দুই অধিনায়কের মধ্যেতা আদৌ মিটেছে কিনা তা বোঝা যাবে ওই সিরিজেই। কারণ টি২০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে হেরে দেশে ফেরার পর এখনও জলঘোলা চলছে। বৃহস্পতিবারই মহিলা দলের জন্য কোচ হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে ডব্লুভি রমনকে। তা নিয়েও তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

বিতর্কের শুরু টি২০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল দলে মিতালী রাজের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটারকে দলে না রাখা নিয়ে। সেই বিতর্কে ঘি ঢালে ভারতীয় দলে বিশ্রি হার। হরমনপ্রীত ম্যাচ হেরে তাঁর ঔদ্ধত্যের প্রদর্শন করে ফেলেন মিতালীর না থাকা নিয়ে জবাব দিতে গিয়ে। ধিকিধিকি আগুনটা তখন ধিরে ধিরে দাবানলের আকার নিতে শুরু করেছে।

মিতালী রাজ বাদ পড়ায় অবাক হননি, তাঁকে এই ক্লাবে স্বাগত জানিয়েছেন সৌরভ

দেশে ফেরে দল। ডাক পরে বিসিসিআই-এ। সকলেই যাঁর যাঁর মতামত মুখে এবং লিখিতভাবে জানায়। সেই লিখিত ই-মেল লিক-ও হয়ে যায় সংবাদমাধ্যমের সামনে। যেখানে দেখা যায় মিতালী  কোচ রমেশ পাওয়ার একে অপরকে দোষারোপ করেছেন বিস্তর।

ততদিনে রমেশ পাওয়ারের চুক্তি শেষ হয়ে যায়। হরমনপ্রীত, স্মৃতি মন্ধনারা চেয়েছিলেন রেখে দেওয়া হোক রমেশ পাওয়ারকে। তাঁদের তরফে বিসিসিআই-এর কাছে আর্জিও গিয়েছিল। কিন্তু দলের ভিতরের দলবাজি গন্ধ ততক্ষণে পেয়ে গিয়েছেন বিসিসিআই-এর পোরখাওয়াকর্তারা। কোচ নির্বাচনের জন্য তৈরি হয় অ্যাড-হক কমিটি। যাতে ছিলেন স্বয়ং কপিল দেব।

ভারতীয় মহিলা দলের কোচ হতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছিলেন ভারতীয় পুরুষ দলকে ২০১১ সালে বিশ্বকাপ দেওয়া গ্যারি কার্স্টেন। অ্যাড-হক কমিটিও চেয়েছিল কার্স্টেনকেই। কিন্তু আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে তাঁর চুক্তি থাকায় সোটা সম্ভব হয়নি। সেই জায়গায় ভারতীয় মহিলা দলের কোচ হিসেবে বেছে নেওয়া হয় ডব্লুভি রমনকে।

টি২০ বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল, আবারও হার, আবারও সেই ইংল্যান্ড

এবার তা নিয়ে প্রতিবাদ করতে শুরু করেন মিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্সের সদস্য ডায়না এডুলজি। টি২০ বিতর্কে প্রথম থেকেই তিনি ছিলেন মিতালীর বিরুদ্ধে রমেশ পাওয়ারদের পক্ষে। তিনিও চেয়েছিলেন কোট হোক পাওয়ারই। কিন্তু তা না হওয়ায়, এই কোট নির্বাচনকে বেআইনি বলে প্রচার করতে শুরু করেন তিনি। একহাত নেন আর এক সদস্য বিনোদ রাইকেও। কোচ নির্বাচন স্থগিত করার কথাও বলেছিলেন এডুলজি। কিন্তু সামনে নিউজিল্যান্ড সফর হওয়ায় তাঁর এই আবদার মানা সম্ভব হয়নি।

আগামী বছর ২৪ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে ভারতের নিউজিল্যান্ড সফর। প্রথমে তিনটি একদিনের ম্যাচ খেলবে দুই দল। তার পর ৬ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে টি২০। টি২০ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে হারের পর এটাই হবে ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের প্রথম সিরিজ।

ভারতীয় মহিলা একদিনের দল: মিতালী রাজ (ক্যাপ্টেন), হরমনপ্রীত কাউর (সহ-অধিনায়ক), স্মৃতি মন্ধনা, জেমিমা রডরিগেজ, পুণম রাউত, দীপ্তি শর্মা, ডি হেমলতা, তানিয়া ভাটিয়া (উইকেট-কিপার), মোনা মেশরাম, একতা বিস্ত, পুনম যাদব, রাজেশ্বরী গায়কোয়াড়, ঝুলন গোস্বামী, মানসী জোশী, শিখা পাণ্ড্যে।

ভারতীয় মহিলা টি২০ দল: হরমনপ্রীত কাউর (ক্যাপ্টেন),স্মৃতি মন্ধনা (ভাইস-ক্যাপ্টেন), মিতালী রাজ, জেমিমা রডরিগেজ, অনুজা পাটিল, দীপ্তি শর্মা, ডি হেমলতা, তানিয়া ভাটিয়া (উইকেট-কিপার), মোনা মেশরাম, একতা বিস্ত, রাধা যাদব, অরুন্ধতি রেড্ডি, পুনম যাদব, মানসী জোশী, শিখা পাণ্ড্যে।

Be the first to comment on "মিতালী-হরমনপ্রীত নিউজিল্যান্ড সফরে খেলবেন একে অপরের নেতৃত্বে  "

Leave a comment

Your email address will not be published.


*