ক্রিকেট বলে মাইক্রোচিপ, বিগ ব্যাশে ঘটতে চলেছে এই বিপ্লব

ক্রিকেট বলে মাইক্রোচিপ

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: ক্রিকেট বলে মাইক্রোচিপ ! ব্যাটের পর এবার ক্রিকেট বলেও লাগানো হচ্ছে মাইক্রোচিপ!‌ সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে অস্ট্রেলিয়ার ঘরোয়া টি২০ ক্রিকেট লিগ বিগ ব্যাশে ঘটতে চলেছে বিপ্লব। এবারের বিগ ব্যাশেই প্যাট কামিন্সদের হাতে যে বল থাকবে, তাতে থাকতে পারে এই বিশেষ মাইক্রোচিপ। বলটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘‌স্মার্টবল’‌।

এই বল তৈরির অন্যতম কাণ্ডারি মাইকেল কাসপ্রোভিচ। অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন জোরে বোলারের সংস্থা ‘‌স্পোর্টকর’–‌এর সহযোগিতায় নতুন বল তৈরি করছে ‘‌কোকাবুরা’‌ ব্র‌্যান্ড। এই বিশেষ বল টেস্ট ক্রিকেটেও ব্যবহারের চিন্তা–‌ভাবনা র‌য়েছে।

গত দু’‌বছর ধরে অনেক পরীক্ষা–নিরীক্ষা করা হয়েছে। তারপর লর্ডসের ইন্ডোর নেটে শনিবার এই নতুন বলের আনুষ্ঠানিক উন্মোচন হয় ক্রিকেট বিশ্বের সামনে।

স্মার্টবলের বেশ কয়েকটি বিশেষত্ব রয়েছে। সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, বল করার সঙ্গে সঙ্গে‌ হাতে–‌গরমে পাওয়া যাবে সেই ডেলিভারি সংক্রান্ত নানা তথ্য। যেমন বল ছাড়ার সময়, উইকেটে পিচ পড়ার আগে এবং পিচ পড়ার পরে বলের গতি কী ছিল মাইক্রোচিপের মাধ্যমে জানিয়ে দেবে স্মার্টবল। এখনও প্রতিটি বলের গতি জানা যায়। কিন্তু স্মার্টবলের মাধ্যমে অনেক বিস্তারিত ও নিখুঁত তথ্য পাওয়া যাবে। বল করার, ছাড়ার এবং মাটিতে পড়ার মুহূর্তে বলের রেভোলিউশন মাপা যাবে। এতে স্পিনারদের সুবিধে হবে।

এছাড়াও যখন ডিআরএস নেওয়া হবে তখন স্মার্টবলের সাহায্যে সিদ্ধান্ত নিতে অনেক সুবিধে হবে। বল ব্যাটে লেগেছে কিনা, জানিয়ে দেবে স্মার্টবল। সুবিধে হবে ডিআরএসের মাধ্যমে ক্যাচ আউটের সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রেও। নিচু ক্যাচ ধরার ক্ষেত্রে বোঝা যায় না ফিল্ডার সেটা ঠিকমতো তালুবন্দি করতে পেরেছেন কিনা। এক্ষেত্রেও সাহায্য করবে স্মার্টবল। বল করতে শুরু করার পর থেকে বোলারের হাতের ওঠা–নামা সংক্রান্ত সব তথ্যই পাওয়া যাবে।

এই নতুন স্মার্টবল ব্যবহার করা যায় কিনা, তা নিয়ে বিভিন্ন দেশের টি২০ লিগের কর্তাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। পরীক্ষামূলকভাবে সবার প্রথম বিবিএলেই ব্যবহার হতে চলেছে এই প্রযুক্তি। সেখানে কোনও সমস্যা না হলে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও খুব শিগগিরই এই বলের ব্যবহার করা হবে। বিশ্বকাপের সময় ওয়ার্নারের ব্যাটে দেখা গিয়েছিল চিপ। ব্যাটের সুইং আরও ভাল করে বুঝতে তিনি বিশেষ চিপ ব্যবহার করেছিলেন।

স্মার্টবল নিয়ে আগ্রহ দেখাতে শুরু করেছেন ক্রিকেটাররা। টেস্ট ক্রিকেটে এই প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে কিনা, তা নিয়ে ইংল্যান্ডের জস বাটলার বলেন, ‘ব্যবহার করা যেতেই পারে। এর থেকে অনেক কিছু জানা যাবে। দর্শকরাও তথ্য পেয়ে যাবেন। আর মাইক্রোচিপ লাগানো বল সাধারণ বলের থেকে আলাদা আচরণ করবে, এমন আশঙ্কা করার কারণ নেই।’

Be the first to comment on "ক্রিকেট বলে মাইক্রোচিপ, বিগ ব্যাশে ঘটতে চলেছে এই বিপ্লব"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*