আবারও এক বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার পুরুলিয়ার, এ বার পুলিশ সুপার বদল

আবারও এক বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহআবারও এক বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ

জাস্ট দুনিয়া ডেস্ক: আবারও এক বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হল পুরুলিয়ার। তিন দিনের ব্যবধানে উদ্ধার হল বিজেপি-র দুই নেতা-কর্মীর দেহ।

তিন দিন আগেই পুরুলিয়ার বলরামপুরের সুপুরডিতে বিজেপি যুব মোর্চার কর্মী, কলেজ পড়ুয়া ত্রিলোচন মাহাতোর ঝুলন্ত দেহ মেলে। ত্রিলোচনের ‘খুনের’ প্রতিবাদে থানায় বিক্ষোভ দেখাতে গিয়েছিলেন শুক্রবার এলাকারই বিজেপি কর্মী দুলাল কুমার। শনিবার বছর বত্রিশের সেই  দুলাল কুমারের দেহ মিলল বিদ্যুতের হাইটেনশন তারের টাওয়ার থেকে ঝুলন্ত অবস্থায়। মাটি থেকে ফুট পাঁচেক উপরে। গলায় দড়ির ফাঁস।

পুরুলিয়ার বলরামপুরের ডাভা গ্রামের বাসিন্দা দুলাল বিজেপির গেঁড়ুয়া মণ্ডলের ‘প্রমুখ’ ছিলেন। পঞ্চায়েত ভোটে সক্রিয় ভূমিকা নিয়েছিলেন বলেও দাবি বিজেপির। দল ও পরিবারের অভিযোগ, রাজনৈতিক আক্রোশে দুলালকে খুন করে ঝুলিয়ে দিয়েছে তৃণমূল-আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। তৃণমূল তা মানেনি। তবে বুধবার ত্রিলোচন মাহাতোর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের পরেই আবার এমন ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। জেলার পুলিশ সুপার জয় বিশ্বাসকে বদলি করেছে প্রশাসন।

এক সময় সিপিএমের পঞ্চায়েত সদস্য মহাবীর কুমারের ছোট ছেলে দুলাল ২০১৪ সাল থেকে বিজেপির সঙ্গে। দুলালদের পরিশ্রমেই গেঁড়ুয়া পঞ্চায়েতের ১৩টি আসনের ১০টিতে বিজেপি জেতে বলে দলীয় সূত্রে দাবি করা হয়েছে। বিজেপি করছে কেন জানতে চেয়ে বৃহস্পতিবার দুয়ারসিনি মোড়ের কাছে দু’জন অপরিচিত লোক নাকি দুলালকে হুমকিও দেয়।

তাঁর পরিবারের দাবি, দুলাল রোজের মতোই শুক্রবার রাতে মোটরবাইকে বাড়ি থেকে আধ কিলোমিটার দূরে দোকানে বাবাকে খাবার পৌঁছে দিতে গিয়েছিলেন। মহাবীরবাবুর জানিয়েছেন, দুলাল না ফেরায় বাড়ি থেকে ওঁকে ফোন করেছিল। উনি ধরেননি। পরে ফোনটা বন্ধ হয়ে যায়। খোঁজ করে শুধু মোটরবাইকটি পাওয়া যায়। সকালে মেলে দেহ। সংবাদমাধ্যমের কাছে পুলিশ সুপার জয় বিশ্বাস জানান, প্রাথমিক তদন্তে আত্মহত্যা বলে মনে হচ্ছে। ময়না-তদন্ত রিপোর্ট পেলে সব স্পষ্ট হবে। এর পরেই নবান্ন থেকে তাঁকে সরিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

২০০৭-১১ পর্যন্ত বলরামপুর ছিল কার্যত মাওবাদীদের মুক্তাঞ্চল। যে দু’টি গ্রামে বিজেপির নেতা-কর্মীদের দেহ মিলেছে, সেই সুপুরডি আর ডাভাতেই ২০১০ সালে মাওবাদীদের গুলি করে খুন করে তিন সিপিএম নেতাকে। এখন ফের রাজনৈতিক উত্তাপে তাতছে পুরুলিয়ার বলরামপুরের মাটি। তিন দিনের ব্যবধানে উদ্ধার হয়েছে বিজেপির দুই নেতা-কর্মীর দেহ। দু’টি ক্ষেত্রেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ করছে বিজেপি। তাদের দাবি, পঞ্চায়েত ভোটে বলরামপুরে বিজেপির কাছে হারের আক্রোশে এই ‘সন্ত্রাস’।

চার দিক সবুজে সবুজ পঞ্চায়েত, মাঝে মাঝেই গেরুয়া ছোঁয়া

Be the first to comment on "আবারও এক বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার পুরুলিয়ার, এ বার পুলিশ সুপার বদল"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*